পায়ে মাড়িয়ে বগুড়ার সেমাইয়ের খামির

মোঃ আবুল হোসেন ১৮ মে,২০২০ ১২৮ বার দেখা হয়েছে লাইক ১১ কমেন্ট ৪.৪৩ ()

পায়ে মাড়িয়ে বগুড়ার সেমাইয়ের খামির

বগুড়ার সেমাই কারখানাগুলোর অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ ও অস্বাস্থ্যকর সেমাই তৈরির প্রক্রিয়া নিয়ে প্রতিবছরই ঈদের আগে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। জেলা প্রশাসনের অভিযানও চলে, জরিমানাও হয়। তবু অবস্থার কোনো পরিবর্তন নেই। বছরের পর বছর একইভাবে চলছে এই কারখানাগুলো। এবারে করোনা মহামারির মধ্যেও সেখানে মেঝেতে ময়দা ফেলে পায়ে মাড়িয়ে খামির তৈরি চলছে। কর্মীদের নেই কোনো বিশেষ পোশাক, টুপি ও গ্লাভস।

ঈদ সামনে রেখে বগুড়ার সেমাই কারখানাগুলোতে সেমাই তৈরির তোড়জোড় শুরু হয় কয়েক মাস আগে থেকেই। এখানে তৈরি চিকন সেমাই ও লাচ্ছা সেমাই গোটা উত্তরবঙ্গসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হয়।সেমাই কারখানাগুলোর বেশির ভাগই কাহালু উপজেলায়। এখানকার শেখাহার বাজার এলাকায় অর্ধশতাধিক সেমাইয়ের কারখানা। এলাকাটি পরিচিতি পেয়েছে লাচ্ছাপল্লি হিসেবে।শনিবার শেখাহার লাচ্ছাপল্লি ঘুরে দেখা গেছে, লকডাউনের মধ্যেও কারখানাগুলোতে উৎপাদন চলছে। ব্যবসায়ীরা জানালেন, পুরো মৌসুমে এখানে হাজার টনের বেশি সেমাই তৈরি হয়। যার বাজার প্রায় শত কোটি টাকা। দেশের নামীদামি অনেক কোম্পানি এখান থেকে লাচ্ছা কিনে নিজস্ব প্যাকেটে ভরে বাজারজাত করে। এখানকার বেশির ভাগ কারখানার বিএসটিআইয়ের অনুমোদন নেই। মহামারির কারণে এবার ব্যবসা মন্দা বলে দাবি ব্যবসায়ীদের।

শেখাহারের সবচেয়ে বড় ভাই ভাই লাচ্ছা সেমাই কারখানা। কারখানায় গিয়ে দেখা গেছে, খামির তৈরি থেকে উৎপাদন ও প্যাকেজিং পর্যন্ত বহু কারিগর ও শ্রমিক কাজ করছেন। শ্রমিকদের কারও কারও মুখে মাস্ক থাকলে ও হাতে দস্তানা (গ্লাভস) নেই। কারিগরদের গা থেকে ফোঁটা ফোঁটা ঘাম পড়ছে। খামিরে ভোঁ ভোঁ করছে মাছি।জানতে চাইলে কারখানার মালিক ও শেখাহার লাচ্ছা সেমাই মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ স্বাস্থ্যবিধি না মানা, পণ্যের গুণগত মান এসব নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে এর আগে তিনি বলেন, এবার ব্যবসা মন্দা। বাইরের জেলায় লাচ্ছা পাঠানো যাচ্ছে না।

ওই এলাকার বেশির ভাগ কারখানার অবস্থা এ রকম। কাহালুর ইউএনও মাসুদুর রহমান বলেন, স্বাস্থ্যবিধি না মেনে লাচ্ছা তৈরির দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ভাই ভাই লাচ্ছা কারখানার মালিককে কয়েক দিন আগেই এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। এ ছাড়া মেঝেতে ময়দা ফেলে পায়ে মাড়িয়ে খামির করে লাচ্ছা তৈরির দায়ে গত বৃহস্পতিবার মালঞ্চা এলাকায় আমানত ব্রেড অ্যান্ড বিস্কুট ফ্যাক্টরিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ইউএনও বলেন, ‌‘ভাই ভয়ংকর অবস্থা। আমানত বেকারিতে গিয়ে দেখা গেল পাকা মেঝের ওপর ময়দা ঢেলে পা দিয়ে মাড়িয়ে খামির করছিলেন কয়েকজন শ্রমিক। এমনকি মেঝের ওপর একটা পলিথিনও বিছানো হয়নি।’ ‌স্বাস্থ্যবিধি না মেনে সেমাই তৈরির একই চিত্র বগুড়া শহরের উপকণ্ঠে বেজোড়া, ঘাটপাড়া, শেওলাগাতি, কালিসামাটি, শ্যামবাড়িয়াসহ আশপাশের ‘চিকন সেমাইপল্লি’তেও।

বগুড়া জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ টি এম কামরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, চলতি রমজান মাসে এ পর্যন্ত জেলায় প্রায় ২০টি লাচ্ছা কারখানায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছেন তিনি। পাঁচ-ছয়টি কারখানায় পায়ে মাড়িয়ে ময়দা খামির করতে দেখেছেন।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ গোলাম ওয়ারেছ
২০ মে, ২০২০ ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

আপনাকে অভিনন্দন। লাইক, কমেন্ট ও রেটিং সাথে অসংখ্য শুভ কামনা রইল। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করছি। সেই সাথে আমার পাক্ষিক ৩১ নং কন্টেন্ট ভার্চুয়্যাল রিয়েলিটি দেখে সুচিন্তিত মতামত, লাইক ও রেটিং প্রদানের অনুরোধ রইল।


মোঃ কামরুজ্জামান ভূঁইয়া
১৯ মে, ২০২০ ০৪:১৪ পূর্বাহ্ণ

সুন্ধর উপস্থাপনের জন্য লাইক ও রেটিং সহ শুভকামনা রইলো। আমার কন্টেন্ট গুলো দেখে লাইক ও পুর্ণ রেটিং সহ মতামতের জন্য অনুরোধ করছি


মেফতাহুন নাহার
১৯ মে, ২০২০ ১২:৫৪ পূর্বাহ্ণ

শুভেচ্ছা-অভিনন্দন ও শুভকামনা। আমার কনটেন্টগুলো দেখে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


তাছলিমা আক্তার
১৮ মে, ২০২০ ০৬:৪১ অপরাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম । লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা ও অভিনন্দন । ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , নিজেকে নিরাপদে রাখুন । আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে লাইক ও রেটিংসহ মূল্যবান মতামত প্রদানের অনুরোধ রইল ।


বীণা মিত্র
১৮ মে, ২০২০ ০৫:০৯ অপরাহ্ণ

শুভকামনা রইল।


পিন্টু চক্রবর্ত্তী
১৮ মে, ২০২০ ০৪:৩৪ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং সহ ধন্যবাদ আমার কনটেন্ট দেখার অনুরোধ রইলো।


অজয় কৃষ্ণ পাল
১৮ মে, ২০২০ ০৩:৩০ অপরাহ্ণ

শ্রদ্ধেয় প্যাডাগজি স্যার, রেটার মহোদয়, সেরা কনটেন্ট নির্মাতাগণ, বাতায়নের সকল স্যার- ম্যাম ও আইসিটি জেলা এম্বাসেডর মহোদয়গণ আমার উদ্ভাবনী গল্পটি দেখার ও পূর্ণ রেটিং সহ গঠনমূলক মতামতের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। আপনাদের সহযোগীতা পেলে সুন্দর , শ্রেণি উপযোগী ও মানসম্মত কনন্টেন্ট উপহার দিয়ে শিক্ষক বাতায়ন কে আরো সমৃদ্ধি করার চেষ্টা করব। শিক্ষক বাতায়ন আই ডি: ajoy.cbmhs


মোঃ শফিকুল ইসলাম
১৮ মে, ২০২০ ০২:৫৯ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিংসহ অসংখ্য শুভকামনা । আমার কনটেন্টগুলো দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও রেটিং প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।


গোলাম ফারুক
১৮ মে, ২০২০ ০২:২৩ অপরাহ্ণ

বাতায়নের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ ।চমৎকার নির্মানের জন্য লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা ।আমার এ সপ্তাহের কন্টেন্ট টি দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও রেটিং প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। বাতায়ন লিঙ্ক https://www.teachers.gov.bd/profile/glm.farukict


আবুল কালাম
১৮ মে, ২০২০ ১২:১৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও রেটিং সহ ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা।


মোঃ আবুল হোসেন
১৮ মে, ২০২০ ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

পূর্ণ রেটিংসহ শুভ কামনা রইলো। আমার এ সপ্তাহের আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত সহ লাইক ও রেটিং প্রত্যাশা করছি।