প্রথম অনলাইন ক্লাস নেওয়ার অভিজ্ঞতা

নীপা চ্যাটার্জী ১০ জুলাই,২০২০ ৮৭ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ ()

বর্তমান পরিস্থিতির অবনতিতে সাধারণ ছুটি দীর্ঘায়িত হওয়ায় অনলাইন ক্লাস নেওয়ার চিন্তা মাথায় চেপে বসে কিছু সংখ্যক উদ্যমশীল শিক্ষকদের পাঠদান অনলাইনে পর্যবেক্ষণের পর। কিন্তু ডিপিএড ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের ৪র্থ টার্মের প্রশিক্ষণার্থী হওয়ার কারণে সেদিকে চিন্তা টা পুরোপুরিভাবে নিয়ে যেতে পারিনি। কেননা, একসাথে, একই সময়ে বিভিন্ন কাজে মনোযোগ স্থির রাখতে পারি নি কোনো দিনই। যে কাজই করি না কেন, কেবল মাত্র সেই কাজকেই প্রাধান্য দিয়েছি ধীরতা ও স্থিরতার সহিত এবং তা শেষ করার পর অন্য কাজ হাতে নিয়েছি। আমি মনে করি, এটা আমার দুর্বলতা। যার কারণে সমসাময়িক বিভিন্ন কার্যকলাপে অংশগ্রহণ করার ক্ষেত্রে মনোবল স্থির রাখতে পারি নি।
যাইহোক, ডিপিএড কোর্সের ইতি টানলাম মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহনের মাধ্যমে। "সৃষ্টির সেরা জীব", একটানা পরিশ্রম করেছি, বিশ্রাম না নিলে কী চলে? সাথে অলসতা এসে যোগ দিল। অনলাইন ক্লাস নেওয়ার চিন্তা রীতিমত বিভিন্ন movie এবং game এর নিচে চাপা পড়ে গেল।
আসলে, কোনো কাজ শুরু করার পেছনে একজন না একজনের অবদান
সর্বদাই রয়েছে। কেননা, আত্মবিশ্বাস এবং প্রেষণা ছাড়া কোনো কাজের প্রতি একাত্মতা নিয়ে আসা আমার পক্ষে কখনই সম্ভব হয়নি। তাই অনলাইন ক্লাস নেওয়ার সেই চিন্তা টা পুনরুজ্জীবিত করতে সহায়তা করে আমার কাছের মানুষগুলো। দৃঢ় চিন্তাশক্তি, মনোবল, প্রেষণা, একাগ্রতা এবং আত্মবিশ্বাস নিয়ে নিজেকে তৈরি করলাম। কিন্তু এটা ভুলে গেছি, আমি অনলাইনে পাঠদান করবো। সচরাচর পাঠদান থেকে যা অনেকটাই ব্যতিক্রম আমার কাছে, যেখানে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি ছাড়াই "মনে করি" সূত্র ধরে পাঠদান করতে হবে ক্যামেরার লেন্স এর দিকে তাকিয়ে।
যাইহোক, ভালো quality সম্পন্ন নিজের মুঠোফোনের ক্যামেরায় পাঠদান ধারণ করার ইচ্ছে থাকা সত্বেও তা সম্ভব হয়নি তাই ছোট বোন Trishti CtRj এর মুঠোফোন কে ব্যবহার করেছি। এই ফোন কে কোনো একটা জায়গায় দাঁড় করিয়ে রাখার জন্য কাকাতো ছোট ভাই #ঋত্বিক_চ্যাটার্জী একটা stand বানিয়ে দেয় বাসার store room এ রাখা জিনিসগুলো থেকে বাছাই করে। প্রথমে খুব হাসি পায় stand টি দেখে। যদিও খুব কষ্ট হয়েছিল কিন্তু পরবর্তীতে adjust করে ফেলি। কারণ, নতুন কিছু কেনার জন্য বাইরে যাওয়াটা totally risky.
প্রথম ক্লাস এভাবেই ধারণ করলাম। ছোট বোনের মোবাইল ফোন টিতে high resulation এর camera quality থাকার কারণে storage full হয়ে যেত তাই laptop এ খন্ডাংশ পাঠদান transfer করি তারপর আবার ধারণ করা শুরু করি। পাঠদান ধারণকার্য শেষ করার পর laptop নিয়ে বসি তা edit করার জন্য। এসব বিষয়ে আমি এতো দ্রুত কাজ করতে পারছিলাম না তাই ছোট ভাই টা রাত জেগে তা সম্পন্ন করে। high resolution থাকার কারণে তা convert করতে হয়। যখন সবকিছু complete করার পর নিজের নেয়া ক্লাস টা final করার জন্য দেখলাম তখন একটা ভয় কাজ করলো সাথে নিজের ভাগ্যের উপর প্রচন্ড রাগ হলো। সামর্থ থাকা সত্ত্বেও নিজের ক্লাস ধারণ করার জন্য প্রয়োজনীয় equipment কিনতে পারিনি, এমনকি মোবাইল ফোন টা ও না। তাই চিন্তা করলাম ক্লাসটা আমি আমার নিজের কাছেই রেখে দেবো, কোথাও post করবো না। খুবই অস্থির অনুভব করা অবস্থায় সিলেট পিটিআই য়ের শ্রদ্ধেয় ইন্সট্রাক্টর (যিনি আমাদের গাইড ইন্সট্রাক্টর ছিলেন) জনাব Effat Ara ম্যাডাম এর phone call আসে। নিজের মনের অবস্থা share করাতে ম্যাডাম আমাকে যথেষ্ট encourage দেন যা আমাকে ক্লাসটা post করার মানসিকতা দৃঢ় করতে সহায়তা করেছে। তাছাড়া,
আরও দুজন সবর্দাই আমাকে inspiration and motivation দিয়ে এসেছেন। একজন, যাকে আমি আমার ছোট বোনের মতো মনে করি Tuhin Nasrin আরেকজন যিনি পারিপাশ্বিক সবকিছুতেই সহায়তা করেছেন একজন সঠিক পথ প্রদর্শকের মতো, জনাব Omar Furquani স্যার। তিনিই আমাকে পরিচয় করিয়ে দেন জনাব Abdul Malik স্যারের সাথে এবং Sylhet divisional online school এর সাথে যুক্ত হই।
সত্যি বলতে কি, কখনো কল্পনা করি নি এতোটা সাড়া পাবো প্রথম ক্লাসেই। হয়তো তাই, প্রথম ক্লাস recording এর পেছনের ইতিহাস টা তুলে ধরলাম ব্যবহৃত equipment এর স্থিরচিত্রসহ।
তাছাড়া, ইতিবাচক সাড়া পাওয়ায় পরবর্তী ক্লাস নেওয়ার প্রতি মনোবল দৃঢ় করতে পেরেছি এবং প্রয়োজনীয় equipment (নতুন মোবাইল ফোন SAMSUNG A51, Boya, Tripod কিনলাম) এর ব্যবস্থা করেছি।
By the way, I am really very thankful to get feedback on my class which is the basement of preparing my next class by trying my best with full of confidence.
Thank you so much.🙏🏻
Just pray for me 😇
 



মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ রওশন জামিল
১১ জুলাই, ২০২০ ১১:০০ পূর্বাহ্ণ

শুভ কামনা।


যুলহাসনাইন মোঃ ওমর ফুরকানী
১১ জুলাই, ২০২০ ০৯:১৭ পূর্বাহ্ণ

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের পাশে এসে দাঁড়ানোর জন্য। আপনার ক্লাস খুবই ভালো লেগেছে। আসলে আগ্রহ না থাকলে প্রতিবন্ধকতা মাড়িয়ে সামনে অগ্রসর হওয়া যায় না। আপনি যে প্রতিকূল পরিবেশে অনলাইন ক্লাসের যাত্রা শুরু করেছেন, এটা যেন থমকে না যায়। আপনি ধারাবাহিকভাবে কাজ চালিয়ে যান। আজ হোক কাল হোক আপনার কাজের মূল্যায়ন হবেই। শুভ কামনা আগামীর দিনগুলোর জন্য