মাধ্যমিকের সঙ্গে মিল না রেখে প্রাথমিকের শিক্ষাক্রম

মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ০২ এপ্রিল,২০২২ ৬৫ বার দেখা হয়েছে লাইক ১৫ কমেন্ট ৫.০০ ()


  

নতুন শিক্ষাক্রম নিয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা প্রশাসনের মধ্যে সমন্বয়হীনতার চুড়ান্ত রূপ প্রকাশ।মাধ্যমিকের সঙ্গে সমন্বয় না করে এবং পরীক্ষামূলকভাবে  বাস্তবায়নের আগেই প্রাথমিক প্রাথমিকের জাতীয় শিক্ষাক্রম অনুমোদন দিয়েছে প্রাথমিকের জাতীয় শিক্ষক্রম সমন্বয় কমিটি (এনসিসিসি)। যেখানে মাধ্যমিক স্তরের শেখানোর প্রক্রিয়ার (শিখন) সঙ্গে প্রাথমিক স্তরে শেখানোর প্রক্রিয়ার মিল নেই। প্রাথমিকে মূলত আগের (২০১২ সালের) শিক্ষাক্রমকেই  পরিমার্জন করা হয়েছে। শনিবার (২ এপ্রিল) প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। প্রতিবেদনটি লিখেছেন মোশতাক আহমেদ। 

প্রতিবেদনে আরও জানা যায় শিক্ষাক্রম বিশেষজ্ঞদের মতে, অ্যাকটিভ লার্নিং শিক্ষার্থীকে খিশনের ওপর আত্মনিয়ন্ত্রণ চর্চা করার সুযোগ করে দেয়, যা মূলত অতিজ্ঞতাভিতিক শিখন  ধারণার একটি মাত্র উপায়। আর অভিজ্ঞতাতিত্তিক 'শিখনে অনেকগুলো ধাপ ও প্রক্রিয়া অনুসরণ করে শিক্ষার্থীরা জ্ঞান, দক্ষতা, দৃষ্টিভলি ও মূল্যবোধ অর্জন করে তা বাস্তবে প্রয়োগ করার অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পায়। 

প্রাথমিকের এমন সিন্ধান্তের ফলে সমন্বিতভাবে নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নের যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল, সেটি কার্যত ভেস্তে গেল। 

নতুন শিক্ষাক্রম প্রণয়নের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরাই বলছেন, প্রাথমিকের এমন সিদ্ধান্তে প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নের মূল স্বপ্ন ও উদ্দ্যে পূরণ হবে না। বরং উল্টো কিছু সমস্যার আশঙ্কা আছে কারণ, শিক্ষার্থীরা প্রাথমিক  স্তরে একভাবে শিখে যখন মাধ্যমিকে পড়তে যাবে, তখন খাপ খাওয়াতে অসুবিধা হবে।

অবশ্য এনসিটিবির  চেয়ারম্যানের রুটিন দায়িত্বে থাকা সদস্য (শিক্ষাক্রম) মো. মশিউজ্জামান বলেছেন, প্রাথমিক কর্তৃপক্ষ তাঁদের বলেছে নতুন শিক্ষাক্রমের রূপরেখা অনুযায়ী প্রাথমিকের শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন করবে। 

দেশের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে বড় রকমের পরিবর্তন এনে প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত নতুন শিক্ষাক্রম সমস্বিতভাবে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় সরকার! যদিও শুরু থেকেই শেখানোর প্রক্রিয়াটি কেমন হবে, তা নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়,  বিশেষ করে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও  পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা শাখার মধ্যে  'ঠেলাঠেলি' চলছিল। এর মধ্যেই সিদ্ধান্ত হয়, প্রথম ও ষষ্ঠ শ্রেণিতে এ বছরের শুরুতে নির্ধারিতসংখ্যক শক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরীক্ষামূলকতাবে নতুন শিক্ষাক্রম বাত্তবায়ন শুরু হবে। এরপর আগামী বছর থেকে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন শ্রেণিতে বাস্তবায়ন শুরু হবে। এভাবে ২০২৭ সালে ছাদশ শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রমের মাধ্যমে এ পর্ব শেষ হবে। 

গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক স্তরের ৬২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ওপর নতুন শিক্ষাক্রম পরীক্ষামূলকভাবে বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। একই সময় থেকে ১০০. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রথম শ্রেনিতেও, বাসবায়ন শুরুর কথা থাকলেও এখন এনসিটিবির  সূত্রগুলো  বলছে, আসন্ন ঈদুল ফিতরের আগে প্রাথমিকে তা শুরুর হওয়ার সন্তাবনা নেই। কারণ, এখনো বই লেখা হয়নি।

এ নিয়ে আলোচনার মধ্যেই গত ২৩ মার্চ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের নেতৃত্বাধীন এনসিসিসিতে প্রাথমিকের স্তুরের বিস্তারিত শিক্ষাক্রম অনুমোদন করা হয়েছে। অথচ শিক্ষাক্রমের রুপরেখা এখনো আন্তমন্ত্রণালয় সভাতেই অনুমোদন হয়নি। এমনটি নিয়মিত চেয়ারম্যান না থাকায় এনসিটিবির বোর্ড সভাতেও প্রাথমিকের শিক্ষাক্রম অনুমোদন হয়নি। 

শিক্ষাক্রম প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ভাষ্য, প্রথমত পরীক্ষামূলক শুরুর আগেই বিস্তারিত শিক্ষাক্রম অনুমোদন করা পদ্ধতিগতভাবে সঠিক হয়নি। কারণ পরীক্ষমূলকভাবে চালুর প্রভাব দেখে তার ভিত্তিতে পরিবর্তন করে শিক্ষাক্রম অনুমোদন যৌক্তক। দ্বিতীয়ত, প্রাথমিকে যেভাবে শিক্ষাক্রম অনুমোদন করা হয়েছে, তা আ্যাকটিভ লার্নিং কে প্রাধান্য দিচ্ছে, অথচ বিশ্বব্যাপী শিক্ষার্থীর যোগ্যতার পারদর্শিতা অর্জনে অভিজ্ঞতাভিত্তিক শিখন ধারণাকে সর্বাধিক ব্যবহার করা হয়। কাজেই শিখনের প্রক্রিয়ায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে স্পষ্ট পার্থক্য দেখা দেবে, যা শিক্ষার্থীর প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক স্তরে উন্নয়নের ক্ষেত্রে যোগসূত্র রাখতে সমস্যার সৃষ্টি করবে। তৃতীয়ত, শিক্ষাক্রমের রুপরেখায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার কোনো স্থান নেই। কিন্তু প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এখনো এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। 

অবশ্য এনসিটিবির সদস্য (প্রাথমিক শিক্ষাক্রম) অধ্যাপক এ কে এম রিয়াজুল হাসান বলেছেন, এনসিসিসি সভায় আলোচনা হয়েছে। পরে যদি সংশোধনের প্রয়োজন হয়, তখন তা করা হবে। আর তাঁরা নতুন করে শিক্ষাক্রম করছেন না। আগেই শিক্ষাক্রমকেই পরিমার্জন করেছেন। অ্যাকটিভ লার্নিং হলেও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতাভিত্তিক শিখনের সুযোগও রাখা হয়েছে।  এখন বিস্তারিত শিক্ষাক্রম অনুমোদন দেওয়ার মাধ্যমেই বই লেখা হবে। এরপর পরীক্ষামূলকভাবে বাস্তবায়ন শুরু হবে। 

প্রাথমিকের নতুন সিদ্ধান্তের বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম উন্নয়ন ও পরিমার্জন কোর কমিটির সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইইআরের অধ্যাপক এম তারিক আহসান বলেন, বিদ্যামান অবস্থায় নিরবচ্ছিন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নের স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নেবে কি না তা এখনো ধোঁয়াশার মধ্যেই থাকছে। 

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০০ অপরাহ্ণ

সম্মানিত প্যাডাগজি রেটার মহোদয়গণ, এডমিন প্যানেল মহোদয়গণ, সেরা কনটেন্ট নির্মাতাগণ, ICTE4 জেলা আম্ব্যাসেডর মহোদয়গণ, বাতায়ন প্রেমী শিক্ষকমন্ডলী আমার কনটেন্ট দেখে আপনাদের সুচিন্তিত মতামত ও রেটিং বিনীতভাবে আশা করছি । আপনাদের সহযোগিতা ও উৎসাহ পেলে বাতায়ন কে আরও সমৃদ্ধ করতে পারবো। আমিও স্বপ্ন দেখি, একদিন বাতায়নের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা হবো। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, বাতায়নের সাথে থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন।


লুৎফর রহমান
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৯:৪৬ অপরাহ্ণ

Best wishes with full ratings. Sir/Mam. Please give your like, comments and ratings to watch my PowerPoint, blog, image, video and publication of this fortnight. Link: PowerPoint: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1240543 Blog: https://www.teachers.gov.bd/blog-details/641161 Video: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1232542 Video 2: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1223239 Publication: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1203164 Batayon ID: https://www.teachers.gov.bd/profile/Lutfor%20Rahman


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


সন্তোষ কুমার বর্মা
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৩:৫৫ অপরাহ্ণ

সুন্দর কন্টেন্ট উপস্থাপনের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আমার এ পাক্ষিকের আপলোড করা কন্টেন্ট দেখার জন্য অনুরোধ করছি।


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


তাপস চন্দ্র সূত্রধর
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০২:০৪ অপরাহ্ণ

👍চমৎকার উপস্থাপনা লাইক ও পূর্ন রেটিং সহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইল🌹। আমার বাতায়ন বাড়িতে ঘুরে আসার জন্য আপনাকে অনুরোধসহ আমন্ত্রণ।


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


জামিলা খাতুন
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৮:১৩ পূর্বাহ্ণ

👍চমৎকার উপস্থাপনা লাইক ও পূর্ন রেটিং সহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইল🌹। আমার বাতায়ন বাড়িতে ঘুরে আসার জন্য আমন্ত্রণ রইল ।


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


কোহিনুর খানম
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৭:২৯ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা। আমার আপলোডকৃত ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। ব্লগ লিংক-https://www.teachers.gov.bd/blog-details/641110


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


কোহিনুর খানম
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৭:২৯ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা। আমার আপলোডকৃত ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। ব্লগ লিংক-https://www.teachers.gov.bd/blog-details/641110


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ


মোঃ মেরাজুল ইসলাম
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ণ

✍️ সম্মানিত, বাতায়ন প্রেমী শিক্ষক-শিক্ষিকা , অ্যাম্বাসেডর , সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা , প্রেডাগোজি রেটার আমার সালাম রইল। রেটিং সহ আমি আপনাদের সাথে আছি। আমার বাতায়ন বাড়িতে আপনাদের আমন্ত্রণ রইলো। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন , নিজে সুস্থ্ থাকবেন, প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখবেন। ধন্যবাদ।🌹


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:০৩ অপরাহ্ণ

অসংখ্য ধন্যবাদ