চিত্র

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের দুঃসময় এর সভাপতি তবিবর রহমান সরদার।

নিমাই চন্দ্র মন্ডল ১৪ জুলাই,২০২১ ১৪৫ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

আওয়ামী লীগের সবচেয়ে দুঃসময় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ঘাতকরা হত্যার পর তবিবর রহমান সরদার যশোর  জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর তিনি প্রতিজ্ঞা করেন, এর হত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত তিনি মাথার চুল কাটবেন না। তিনি তা রক্ষা করেছিলেন। কিন্তু ১৯৯৯ সালে হজব্রত পালন করতে গিয়ে ধর্মীয় কারণে তিনি মাথার চুল কেটেছিলেন এবং পরবর্তীতে তা আবারও রাখেন। অনেক দিন ধরে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের কান্ডারির মতো ছিলেন। আর সেই সময় দলে গ্রুপিং থাকলেও তিনি ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়। নতুন প্রজন্মের আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই জানেন না তবিবর রহমান সরদার কেমন মানুষ ছিলেন। কারণ, তিনি যাঁদের সাথে রাজনীতি করেছেন, তাঁদের অনেকে গত হয়েছেন বেশ আগেই। তবে যশোরের আওয়ামী লীগ শুধু নয়, প্রতিটি দলের নেতাকর্মীদের কাছে তিনি ছিলেন শ্রদ্ধার পাত্র। আজন্ম রাজনীতিক এই ব্যক্তি যেমন ছিলেন বাক স্বাধীনতায় বিশ্বাসী অন্যদিকে তিনি ছিলেন বাক সংযমী। তিনি চাইতেন কেউ যেন তার কথায় কষ্ট না পান। সেজন্য তিনি সর্বদা ছিলেন অত্যন্ত সচেতন। প্রয়াত মহামান্য রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানসহ বর্তমান মহামান্য রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ প্রমুখ রাজনীতিকদের সাথে তার ছিল সদ্ভাব। তাদের কাছ থেকে যেমন পেয়েছেন সম্মান, তেমনি আজীবন তাদের সম্মান করেছেন।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
আবু নাছির মোঃ নুরুল্লা
২০ জুলাই, ২০২১ ১০:০৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা ও অভিনন্দন। বাতায়নে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও রেটিং বিনীতভাবে আশা করছি।


নিমাই চন্দ্র মন্ডল
১৪ জুলাই, ২০২১ ০৯:৫৯ অপরাহ্ণ

চমৎকার উপস্থাপন লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কন্টেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান লাইক, রেটিং, মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।