খবর-দার

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড

মোঃ গোলাম ফারুক ০৯ অক্টোবর,২০১৯ ৩৪ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড।মেরুদণ্ড সোজা না থাকলে যেমন সোজা হয়ে দাঁড়ানো যায় না,তেমনি কোন জাতি ও প্রতিষ্ঠিত হতে পারেনা।বেগম রোকেয়ার শিক্ষা সমাজ আর বর্তমান শিক্ষা সমাজ ঠিক যেন মুদ্রার এ পিঠ ও পিঠ।তাই শিক্ষাকে চাদরের ন্যায় জড়িয়ে সমস্ত প্রতিকুল পরিবেশকে অনুকুল ভেবে অগ্রসর হতেই হবে।আমরা যারা শিক্ষকতা নামক মহান পেশার সাথে জড়িত একটু পেছন ফিরে তাকালেই দেখব আমরা কি পরিবেশে শিক্ষা নিয়েছি,উপভোগ করেছি।আর বর্তমান পরিবেশ ! সে তো স্বর্গ !কি সূযোগ নেই এখানে?আমাদের না পাওয়ার হতাশা ছিল কিন্তু আমাদের প্রজন্ম তারা তো রাজা- সমস্ত সুবিধা পাচ্ছে।আমি একজন সাধারণ মানুষ হিসাবে,এই প্রজন্মের শিক্ষক হিসাবে সবার কাছে নিবেদন জানাব যে,আমাদের সন্তান বড় হবার সাথে সাথে ১মেই তাদের শেখাব---প্রার্থনা করা ,আচরণ,দায়ীত্ব-কর্তব্য,পড়াশোনার সুফল,দেশপ্রেম,ত্যাগ ইত্যাদি।যারা অভিভাবক আছি আমরা সর্বপ্রথম সচেতন হব,তারপর সন্তান দেরকে সজাগ করব-তারা ঠিকমত স্কুলে যাচ্ছে কিনা,কার সাথে মিশছে,স্কুলে যাবার জন্যে বাসা থেকে বের হয়ে আসলেই স্কুলে গেল কিনা,স্কুল টাইমে শিক্ষকগণের সাথে যোগাযোগ করা,বাসায় আসলেই পড়ছে কিনা নাকি পড়ার নামে আইফোনের সাথে সম্পৃক্ত কিনা,স্কুলে আসার সময় মোবাইল ফোন বাসায় রেখে যাবার উৎসাহদান ইত্যাদি তদারকি নিয়মিত করাটা জরুরী। বর্তমানে সমাজ বলবনা, পরিবারের বড়ই নৈতিক অবক্ষয় ঘটেছে। আজ আমার- আপনার সন্তান জানেইনা সম্মান কি জিনিস,আদব-ভদ্রতা নামের গুণাবলী কি। দেখা যায় প্রায়ই ছাত্র শিক্ষকের সাথে বেয়াদবি করছে,উচ্চ-বাচ্য হচ্ছে,কখনো বা অভিভাবকের বেপরোয়া প্রতিবাদ,যার প্রভাব সন্তানের উপর বর্তায়।অভিভাবকদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে বলি আপনার সন্তান সেটা ছেলে হোক বা মেয়ে হঠাত কোন পরিবর্তন যেমন পড়ার চেয়ে সাজাগোজা বা মোবাইল নিয়ে সময় ব্যয় বেশি করছে,হঠাত হঠাত কোথাও দেরি করে ফিরছে ইত্যাদি, আপনি নিশ্চিত হবেন সে কোন খারাপ সঙ্গের সাথে সংযুক্ত হয়েছে। আমি-আপনি মুখে বলছি কিংবা অন্তরেও চাইছি যে আমাদের সন্তান মানুষ হোক,প্রতিষ্ঠিত হোক কিন্তু শুরুটা সেভাবে হচ্ছেনা বা সেভাবে পরিচালিত হচ্ছেনা।তাই আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে যাতে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসাবে এই সোনার দেশটিকে আরোও সমৃদ্ধ করতে পারি।

                                                                  

                                                              লেখনিতে-মোঃ গোলাম ফারুক

                                                                        আই সি টি শিক্ষক

                                                          ভবানীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়,হরিণাকুণ্ডু,ঝিনাইদহ

                                                               মোবাইল নং-০১৯১৬-৫১১৬৯৭

                                                                 ঝিনাইদহ জেলা এ্যাম্বাসেডর

                                                       golamfaruk2021@gmail.com


মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
Nimay Chandra
১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০৮:০০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার,


মোঃ গোলাম ফারুক
০৯ অক্টোবর, ২০১৯ ১০:১৫ পূর্বাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম,আমি বাস্তবতার ভিত্তিতে শিক্ষামূলক লিখতে চাই, আমাকে উতসাহিত করতে অনুগ্রহপূর্বক রেটিং ও মতামত দেবেন বলে আশা রাখি।ধন্যবাদ সবাইকে।