চিত্র

বগুড়ায় ধানের দাম বেড়েছে, কৃষকের মুখে হাসি

মোঃ আবুল হোসেন ১৬ মে,২০২০ ১২২ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

বগুড়ায় ধানের দাম বেড়েছে, কৃষকের মুখে হাসি

সপ্তাহের ব্যবধানে বগুড়ার মোকামে ধানের দাম বেড়েছে মণপ্রতি ৮০ থেকে ১০০ টাকা।ভালো দাম পেয়ে হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। ছবিটি গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টায় বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা মোকাম থেকে তোলা। ছবি: সোয়েল রানামহাসড়কের পাশে বিশাল হাট। হাটজুড়ে শুধু ধান আর ধান। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও লকডাউন উপেক্ষা করে ভ্যান-ভটভটিতে করে হাটে বোরো ধান বিক্রির জন্য এসেছেন কৃষক। ভালো দাম পেয়ে হাসি মুখে ফিরেছেন কৃষক। অনেকেই ধান বিক্রির টাকা দিয়ে মাছ-মাংস আর তরমুজের মতো মৌসুমি ফল কিনে বাড়ি ফিরেছেন। এ চিত্র উত্তরাঞ্চলের ধানের অন্যতম বড় মোকাম বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা হাটের।

গতকাল শুক্রবার সকালে এই হাটে মণপ্রতি মিনিকেট হিসেবে পরিচিত সরু ধান ৯৮০ থেকে ১০১০ টাকা দরে এবং কাটারিভোগ জাতের সরু ধান ৮৫০ থেকে ৮৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর ব্রি-২৮ জাতের ধান বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা দরে।

সপ্তাহের ব্যবধানে বগুড়ার মোকামে ধানের দাম বেড়েছে মণপ্রতি ৮০ থেকে ১০০ টাকা।ভালো দাম পেয়ে হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। ছবিটি গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টায় বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা মোকাম থেকে তোলা। ছবি: সোয়েল রানাসপ্তাহের ব্যবধানে বগুড়ার মোকামে ধানের দাম বেড়েছে মণপ্রতি ৮০ থেকে ১০০ টাকা।ভালো দাম পেয়ে হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। ছবিটি গতকাল শুক্রবার সকাল ৭টায় বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা মোকাম থেকে তোলা। ছবি: সোয়েল রানামহাসড়কের পাশে বিশাল হাট। হাটজুড়ে শুধু ধান আর ধান। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও লকডাউন উপেক্ষা করে ভ্যান-ভটভটিতে করে হাটে বোরো ধান বিক্রির জন্য এসেছেন কৃষক। ভালো দাম পেয়ে হাসি মুখে ফিরেছেন কৃষক। অনেকেই ধান বিক্রির টাকা দিয়ে মাছ-মাংস আর তরমুজের মতো মৌসুমি ফল কিনে বাড়ি ফিরেছেন। এ চিত্র উত্তরাঞ্চলের ধানের অন্যতম বড় মোকাম বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা হাটের।

গতকাল শুক্রবার সকালে এই হাটে মণপ্রতি মিনিকেট হিসেবে পরিচিত সরু ধান ৯৮০ থেকে ১০১০ টাকা দরে এবং কাটারিভোগ জাতের সরু ধান ৮৫০ থেকে ৮৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর ব্রি-২৮ জাতের ধান বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা দরে।

ব্যবসায়ী ও আড়ৎদারেরা বলছেন, এক সপ্তাহ আগে এই হাটে মিনিকেট ও কাটারিভোগ জাতের ধানের মণপ্রতি দাম ছিল যথাক্রমে ৮৪০ থেকে ৯০০ এবং ৭৪০ থেকে ৭৫০ টাকা। আর ব্রি-২৮ জাতের ধান বিক্রি হয়েছে ৬৫০ টাকা দরে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে সব ধরনের ধানের দাম গড়ে ১০০ টাকা করে বেড়েছে। গত মৌসুমে কাটারিভোগ ও স্থানীয় জাতের মিনিকেট ধানের দাম ছিল গড়ে প্রতিমণ ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা। আর ব্রি-২৮ ধান কেনাবেচা হয়েছিল ৫২০ থেকে ৫৫০ টাকা মণ দরে।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
দুলাল কুমার মন্ডল
১৭ মে, ২০২০ ১০:২২ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ অসংখ্য ধন্যবাদ এবং সেই সাথে আপনার সাফল্য কামনা করছি। এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত উদ্ভাবনের গল্প দেখে লাইক, রেটিং ও মতামত দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইলো।


আবুল কালাম
১৭ মে, ২০২০ ০৪:৪৫ অপরাহ্ণ

লাইক এবং পূর্ণ রেটিং সহ শুভ কামনা রইল।


মোঃ শফিকুল ইসলাম
১৭ মে, ২০২০ ০২:৩০ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিংসহ শুভ কামনা রইলো। আমার এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত ৪৭তম কনটেন্টটি দেখে আপনার মূল্যবান মতামত সহ লাইক ও রেটিং প্রত্যাশা করছি।


মেফতাহুন নাহার
১৭ মে, ২০২০ ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ণ

শুভেচ্ছা-অভিনন্দন ও শুভকামনা। আমার কনটেন্টগুলো দেখে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল। আপনার সুস্থতা কামনা করছি ।


বীণা মিত্র
১৬ মে, ২০২০ ০৫:১৬ অপরাহ্ণ

শুভকামনা রইল।


মোঃ আবুল হোসেন
১৬ মে, ২০২০ ০২:৩৩ অপরাহ্ণ

Reting soho shuv kamona roil.


মোঃ আবুল হোসেন
১৬ মে, ২০২০ ১২:২৩ অপরাহ্ণ

Reting soho shuv kamona roil.