বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধকে জানি

শারমিন জামান ২৮ সেপ্টেম্বর,২০১৯ ১৯২ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ০.০০ ()

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান,বাংলাদেশের বৃহত্তর ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জ মহকুমার(বর্তমান জেলা) টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহন করেন।সাজানো গোছানো এ গ্রামটি ছোট্ট বাইগার নদীর তীর ঘেষে অবস্থিত।বাইগার নদী এঁকেবেঁকে গিইয়ে মিশেছে কিছুটা বড় মধুমতি নদীতে।বাইগার হল মধুমতির শখা নদী। নদিটির দুপাশ ঘেষে অসংখ্য তাল, তমাল, হিজল,আ্‌ম, জাম,নারিকেল, সুপারি, কাঁঠালের বনবীথি,নদীর বুকে পানসি নৌকায় মাঝির ভাটিয়ালি গান,পাখির কলকাকলি সব মিলিয়ে এক অপুর্ব পরিবেশে ১৯২০ সালের ১৭ ই মার্চ তার জন্ম।বাবা- শেখ লুৎফর রহমান,মা-সায়েরা বেগম।

১৯৩৯সালে-মিশনারী স্কুলে পড়েন,১৯৪০ সালে-ভারত মুসলিম ছাত্র ফেডারেশনে যোগ দেন।১৯৪২ সালে এন্টাস পাশ করেন।এরপর কলকাতা ইসলামি কলেজে ভর্তি হন।পাকিস্তান ও ভারত পৃথক হয়ে যাবার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তি হন।

শেখ মুজিবর রহমান প্রধানত ছাত্ররাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন।তার রাজনীতির দীক্ষাগুরু ছিলেন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী।শেখ মুজিবের প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়ার সাথে সাথে নানা রাজনৈতিক কর্মকান্ড অব্যাহত গতিতে চলতে থাকে।

১৯৪৯ সাল থেকে ১৯৫২ সাল পর্যন্ত মুজিব বিভিন্ন মেয়াদে কারগারে আটক ছিলেন।সে সমইয় তিনি ব্যক্তিগত কথা ভুলে গিয়ে বাঙ্গালির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নিজেকে জড়িয়ে রাখেন।১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনের সময় জেলে থেকে রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম কমিটির সাথে যোগাযোগ রেখে আন্দোলন চালিয়ে যাবার নির্দেশ দেন।এরপর ১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্টের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৫৫ সালের ২১ শে অক্টোবর বাংলাদেশ আওয়ামী মুসলিম লীগের বিশেষ অধীবেশনে দলের নাম থেকে মুসলিম শব্দটি বাদ দেওয়া হয়।১৯৬৬ সালে-৫ ই ফেব্রুইয়ারি ৬ দফা দাবী পেশ করেন।১৯৬৮ সালে ৩৪ জন বাঙ্গালির উপর মামলা দায়ের করা হয় যা আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা নামে পরিচিত।এসময় সবাইকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়।আসামীদের বিচারকাজ শুরু হয়।

১৯৬৯ সালের ৫ ই জানুইয়ারি ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ ১১ দফা দাবী পেশ করে।যার মধ্যে ৬ দফা দাবী অন্তর্ভূক্ত ছিল।আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার বিরুদ্ধে ছাত্র সংগ্রামের আন্দোলন সারা দেশ ব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে যা ৬৯ এর গনঅভূর্থান নামে পরিচিত।

১৯৭০ সালে নির্বাচনে জয় লাভ করলেও পশ্চিম পাকিস্তানের জুলফিককার আলী ভুট্ট ও ইয়াহিয়া খান ক্ষমতা শেখ মুজিব কে দেন না। ১৯৭১ সালের ১৭ ই এপ্রিল মুজিবনগর সরকার গঠন করা হয়।১৯৭১ সালের ৭ ই মার্চ জাতীর উদ্দেশ্যে স্মরণীয় ভাষণ দেন।

১৯৭১ সালে ২৫ শে মার্চ বাঙালি জাতির কাল রাত যা অপারেশন সার্চ লাইট নামে পরিচিত।নিরীহ বাঙ্গালিদের উপর সামরিক বাহিনীরা অভিযান শুরু করে।১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ শেখ মুজিবর রহমান, তার ধানমন্ডী ৩২ নম্বর বাড়ি থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দেন।যুদ্ধের সময় শেখ মুজিবর রহমানের পরিবারকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়।

১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি  জুলফিককার আলী ভুট্ট শেখ মুজিবর রহমানকে মুক্তি দেন।এরপর তিনি লন্ডন হয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরাগান্ধীর সাথে সাক্ষাৎকালে বলেন-ভারতের জনগন আমার জনগনের শ্রেষ্ট বন্ধু।

১৯৭২ সালের ১০ ই জানুয়ারি শেখ মুজিবর রহমান স্বাধীন দেশে ফিরে আসেন।

শারমিন জামান,সহকারি শিক্ষক,গোহাইলবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,

বোয়ালমারী,ফরিদপুর।মোবাইল-০১৭৪৩৫৫৩৪৭২

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
Shobnom Mustary
২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

এ সপ্তাহের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা কে অনেক অনেক অভিনন্দন