স্প্যানিশ মুসলিম যুবকরা আমার চোখ খুলে দিয়েছে

আফসিনা ২৬ ডিসেম্বর,২০২০ ৪৫ বার দেখা হয়েছে লাইক ১৫ কমেন্ট ৪.১৪ ()

আব্দুল হাকিম হেইনজ দক্ষিণ লন্ডনের অধিবাসী। সাত বছর বয়সে তাঁর মা মুসলিম হলে তিনি ইসলামের সঙ্গে পরিচিত হন। প্রথমে মায়ের ইসলামগ্রহণকে মেনে নিতে পারেননি তিনি। তবে দীর্ঘ অনুসন্ধানের পর ইসলামের শ্বাশত সৌন্দর্য ধরা পড়ে তাঁর চোখে এবং ইসলাম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেন।
আব্দুল হাকিম হেইনজ দক্ষিণ লন্ডনে বড় হয়েছেন। তিনি সাত বছর বয়সে ইসলামের সঙ্গে পরিচিত হন যখন তাঁর মা ইসলাম গ্রহণ করেন। কয়েক বছর পর তিনি মিসর ভ্রমণ করেন এবং অবস্থান করেন যে আরবি ভাষায় দক্ষতা অর্জনের পাশাপাশি ইসলাম সম্পর্কে জানতে পারেন। শিশু বয়সে মা ইসলামগ্রহণের পর তাঁর মা ও ভাই-বোনরা চার্চে যাওয়ার পরিবর্তে ইসলাম অনুশীলন শুরু করেছেন। পরিবারের আচরণে তিনি ব্যথিত হন। কেননা খ্রিস্ট ধর্মে তিনি স্বস্তি বোধ করতেন এবং তা অনুশীলনে অভ্যস্ত ছিলেন। এ ছাড়া তাঁর সামনে ইসলামকে ‘কঠোর’ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছিল। প্রথমে তিনি কিছুটা কঠিনও মনে করেছিলেন। মাত্র সাত বছর বয়সে তাঁকে নামাজ আদায় ও রোজা রাখতে বলা হয়েছিল। তিনিও কিছু না বুঝে আরবি ও কোরআন পাঠ শুরু করেছিলেন। তবে মনে প্রশ্ন ছিল, কেন তাঁকে কোরআন পাঠ করতে হবে? কয়েক বছর পর সব কিছু তাঁর কাছে স্পষ্ট হয় এবং ইসলামকে নিজের জীবনের পথ হিসেবে গ্রহণ করেন। তবে একজন কিশোর হিসেবে জীবন সম্পর্কে তাঁর মনে নানা প্রশ্ন উঠতে থাকে। প্রশ্নগুলোর উত্তর জানতে জানতে একসময় ইসলামকে ভালোবেসে ফেললেন। ইসলাম তাঁর কাছে আরো গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠল।
হেইনজ বলেন, ‘আমার কৈশোরে কারো জন্য মুসলিম হওয়া ছিল লজ্জার বিষয়; যদিও স্কুলে আমি ইসলামিক স্টাডিজ পড়েছিলাম। কিন্তু তা আমার কাছে হিন্দু ও শিখ ধর্মের চেয়ে বেশি কিছু ছিল না। তবে মুসলিমদের অন্যদের চেয়ে ভিন্ন মনে করতাম।’ মাধ্যমিকে তিনি ইসলামিক স্টাডিজ নেননি; কিন্তু ইসলাম তাঁর হৃদয়ে ধারণ করে ফেলেছে। তাঁর ভাষায় ‘এটা হয়েছিল বাইরের চাপে; যদিও আমি ইসলামকে যথাযথভাবে ধারণ করতে পারিনি।’ ১৪ বছর বয়স পর্যন্ত হেইনজ সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে থাকার চেষ্টা করলেন। এরপর তিনি নিজেকে একজন ধার্মিক মুসলিম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করলেন। আর তা হয়েছিল হল্যান্ড ও স্পেন সফর করার পর। সেখানে তিনি কিছু ধার্মিক মুসলিমের সাক্ষাৎ পেয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘স্পেনে মুসলিমরা সংখ্যালঘু; কিন্তু তারা ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। বিশেষত আমার বয়সী যুবকরা ইসলামের ব্যাপারে আগ্রহী। তাদের দেখে আমি লজ্জিত হই। যুবকরা ইসলাম গ্রহণ করছে দেখে আমি গর্বিত বোধ করি।’ স্পেন থেকে যুক্তরাজ্যে ফিরে আসার পর যখন স্কুলে গেলেন, তখন নিজের ভেতর শক্তি খুঁজে পেলেন। তিনি আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করলেন, ‘আমি মুসলিম।’ তাঁর ধর্মীয় স্বাধীনতা যেন আরো বেড়ে গেল। কোরআন মুখস্থ করার জন্য বিশেষ প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হলো।

হেইনজের ভাষ্য মতে, ১৭ বছর বয়স থেকে তিনি পুরোপুরি ইসলাম পরিপালনের সিদ্ধান্ত নেন। ইসলাম অনুশীলনের মাধ্যমে হেইনজ আরো বেশি শান্ত ও সংযত হলেন এবং তাঁর দায়িত্ববোধ বৃদ্ধি পেল। কেননা তিনি জানেন আল্লাহর কাছে তাঁর একটি দায়বদ্ধতা রয়েছে। মানুষ হিসেবে তিনি তাঁর ওপর কিছু দায়িত্ব অর্পণ করেছেন। হেইনজ মনে করেন, ইসলাম ছাড়া তিনি কখনো একজন ভালো মানুষ হতে পারতেন না। ফলে ইসলাম গ্রহণের তাওফিক দানের জন্য তিনি আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞ। মিসরে অবস্থানের সময় হেইনজ ইসলাম ও মুসলমানের দৈনন্দিন জীবন কাছ থেকে দেখার সুযোগ পান, যা তাঁকে ইসলাম বুঝতে সাহায্য করেছে। হেইনজ মনে করেন, মুসলিমদের কোরআনচর্চায় আরো বেশি মনোযোগ দেওয়া আবশ্যক।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৫ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৩ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


মোঃ মেহেদুল ইসলাম
২৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৯:১৬ অপরাহ্ণ

স্যার/ম্যাডাম, শিক্ষক বাতায়নে চলতি পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত ব্লগ দেখে লাইক,কমেন্ট ও রেটিং প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। ২৭/১২/২০২০ https://teachers.gov.bd/blog-details/587235


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৫ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


অচিন্ত্য কুমার মন্ডল
২৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৫:৩৯ অপরাহ্ণ

শুভকামনা রইলো এবং সেই সাথে পূর্ণ রেটিং । আপনার তৈরি কন্টেন্ট আমার দৃষ্টিতে সেরার তালিকা ভুক্ত। সে জন্য আপনাকে একটু সহযোগিতা করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। সেই সাথে কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। আমার এ পাক্ষিকের কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখার ও রেটিং সহ মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। ধন্যবাদ কন্টেন্টঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/814593 ব্লগঃ https://www.teachers.gov.bd/blog-details/587168শুভকামনা রইলো এবং সেই সাথে পূর্ণ রেটিং । আপনার তৈরি কন্টেন্ট আমার দৃষ্টিতে সেরার তালিকা ভুক্ত। সে জন্য আপনাকে একটু সহযোগিতা করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। সেই সাথে কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। আমার এ পাক্ষিকের কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখার ও রেটিং সহ মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। ধন্যবাদ কন্টেন্টঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/814593 ব্লগঃ https://www.teachers.gov.bd/blog-details/587168


আব্দুল্লাহ আত তারিক
২৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ণ

সুপ্রভাত, আপনার দিনটি শুভ হোক । অনেক শ্রমলব্ধ আপনার এই নির্মাণ। পূর্ণ রেটিংসহ আপনার সফলতা গল্প শোনার অপেক্ষায় থাকলাম । ডিসেম্বর - ২০ এর পাক্ষিক - ২ আমার নির্মিত কনটেন্ট নবম-দশম শ্রেণির বাংলা সাহিত্য বইয়ের কবি শামসুর রাহমান রচিত "তোমাকে পাওয়ার জন্য, হে স্বাধীনতা" দেখার জন্য আমন্ত্রণ রইল ।


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


সাজেদা সুলতানা লিখা
২৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৯:৫৮ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণরেটিংসহ শুভকামনা আপনার জন্য।


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


অচিন্ত্য কুমার মন্ডল
২৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৯:৪৭ অপরাহ্ণ

শুভকামনা রইলো এবং সেই সাথে পূর্ণ রেটিং । আপনার তৈরি কন্টেন্ট আমার দৃষ্টিতে সেরার তালিকা ভুক্ত। সে জন্য আপনাকে একটু সহযোগিতা করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। সেই সাথে কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। আমার এ পাক্ষিকের কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখার ও রেটিং সহ মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। ধন্যবাদ কন্টেন্টঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/814593 ব্লগঃ https://www.teachers.gov.bd/blog-details/586661


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
২৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৯ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো। এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে লাইক ও রেটিংসহ আপনার মতামত দেওয়ার জন্য সবিনয় অনুরোধ করছি


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


আফসিনা
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ