৮ম-শ্রেনী বাংলাদেশ ও বিস্বসভ্যতা

মোঃ মেহেদুল ইসলাম ০২ মার্চ,২০২১ ১৭ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ ()

নিজস্ব প্রতিবেদক: শিল্পের ক্রমাগত বিকাশের ফলে ব্যাপকভাবে পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। উৎপাদন প্রক্রিয়ায় সম্পদের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারে পরিবেশে ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। আবার উৎপাদিত বর্জ্যরে কারণে প্রতক্ষ্যভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পরিবেশ। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, এখনই টেকসই উৎপাদন ও ভোগ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা দরকার। পরিবেশের ওপর পোশাকশিল্প খাতের এ নেতিবাচক প্রভাব কমাতে উদ্ভাবনী উদ্যোগ ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শিল্প-কলকারখানার পানি, জ্বালানি ব্যবহার হ্রাস করে বর্জ্য নিষ্কাশন কমানো প্রয়োজন।
গতকাল শনিবার রাজধানীর মহাখালী ব্র্যাক সেন্টারে অ্যাকশনএইড বাংলাদেশ ও ফ্যাশন রেভুলিউশন আয়োজিত ‘ভয়েসেস অ্যান্ড সল্যুশনস’ শীর্ষক সেমিনারে এসব বক্তব্য উঠে আসে।
সেমিনারে অ্যাকশনএইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ্ কবির পোশাক খাত কীভাবে পরিবেশের ওপর প্রভাব ফেলছে তার ওপর একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। প্রবন্ধে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী তিন ট্রিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য খাত ফ্যাশন শিল্প। যেটি পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দূষণকারী খাত। একই সঙ্গে এটি বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পানি ব্যবহারকারী খাত। অপরদিকে শুধু এ একটি খাত থেকেই বিশ্বের ২০ শতাংশ বর্জ্য পানি এবং ১০ শতাংশ কার্বন-ডাই অক্সাইড নিঃসরণ হয়।
প্রবন্ধে উল্লেখ করা হয়, শিল্প-কারখানার সব ক্ষেত্র, যেমন কাটা, বয়ন, সেলাই, প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং তৈরি পোশাক উৎপাদন বায়ু, পানি এবং মাটি দূষণ করে থাকে। বেশিরভাগ কারখানা নদীর তীরে অবস্থিত হওয়ায় তাদের বর্জ্য নদীতে ফেলা হয়। ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশনের এক গবেষণা মতে, প্রতি বছর পোশাকশিল্প কারখানায় পোশাক ও তুলা ধৌতকরণ এবং রঙের কাজে ১৫০০ বিলিয়ন লিটার পানি ব্যবহার করা হয়। কারখানাগুলো ব্যবহারের পর এ বিষাক্ত পানি নদী এবং খালে নিষ্কাশন করে।
এ প্রসঙ্গে ফারাহ্ কবির বলেন, বাংলাদেশের পোশাক শিল্প খাত দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখলেও, পরিবেশের জন্য এটি উদ্বেগজনক। পানি দূষণের ফলে এক দিকে কমছে মাছের সংখ্যা, অপরদিকে হ্রাস পাচ্ছে চাষের উপযোগী জমি। বেশিরভাগ স্থানীয় কৃষক ও মৎস্যজীবীদের জীবিকা এখন ঝুঁকিপূর্ণ। পরিস্থিতি সামাল দিতে সব পক্ষকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিল্প-কারখানা হতে নিষ্কাশিত বর্জ্যরে পরিমাণ কমিয়ে আনতে হবে। জলাশয়কে ডাস্টবিন হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না। বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থাকে করতে হবে আরও উন্নত। তিনি বলেন, রানা প্লাজা ধসের পর বাংলাদেশের শিল্প খাতে অনেক পরিবর্তন এসেছে। তবে, অংশীদারদের মধ্যেই এখনও সচেতনতার অভাব রয়েছে।
বিজিএমইএ’র পরিচালক শরীফ জহির বলেন, কাঁচামাল দক্ষতার সঙ্গে ব্যবহার করলে বর্জ্যরে পরিমাণ আরও কমিয়ে আনা সম্ভব। পানি ও জ্বালানি ব্যবহার কমিয়ে এনে বর্জ্য নিষ্কাশনের হার হ্রাস করার লক্ষ্যে আরও কাজ করা জরুরি। পরিবেশবান্ধব মেশিন ব্যবহারসহ ভালো উদ্যোগগুলো প্রচারের মাধ্যমে অংশীদারদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করে এ সমস্যার সমাধানের দিকে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।
পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. সুলতান আহমেদ বলেন, দেশের কারখানাগুলোর পরিবেশবিষয়ক তদারকি ব্যবস্থাপনা আছে। তবে তদারকির জন্য যথেষ্ট লোকবল নেই। পরিবেশ রক্ষার জন্য প্রয়োজন দক্ষ জনশক্তি ও পরিবেশ ব্যবস্থাপনা। একইসঙ্গে দরকার মানসিকতার পরিবর্তন।
ফ্যাশন রিভোলিউশনের কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর নওশীন খায়ের, সবার আগে সবার মানসিক পরিবর্তন জরুরি। সম্প্রতি শ্রদ্ধেয় প্যাডাগজি রেটার মহোদয়, এডমিন মহোদয়, সেরা কনটেন্ট নির্মাতা মহোদয়, সেরা উদ্ভাবক মহোদয়, সেরা নেতৃত্ব মহোদয়, বাতায়ন প্রেমী সকল শিক্ষক -- শিক্ষিকা ও আইসিটি জেলা এম্বাসেডর মহোদয়কে আমার  এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত ৫7তম কনটেন্ট ,ব্লগ ৮০, ছবি ২৮৮   দেখে লাইক,গঠন মূলক মতামত ও রেটিং প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।

মোঃমেহেদুল সলাম

শারীরিক শিক্ষক

মাহমুদপুর উচ্চ বিদ্যালয়

ক্ষেতলাল ,জয়পুরহাট

mehedulislam190179@gmail.com

01855931759

 

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোহাম্মদ শাহাদৎ হোসেন
১১ মার্চ, ২০২১ ০৪:১৩ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন এবং নিরাপদে থাকবেন। আবারও ধন্যবাদ।


মোঃ মুজিবুর রহমান
০৯ মার্চ, ২০২১ ০৪:২৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ শুভ কামনা রল


মুহাম্মাদ নজরুল ইসলাম
০৫ মার্চ, ২০২১ ০৭:৪৯ অপরাহ্ণ

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা করছি।


মোঃ মেহেদুল ইসলাম
০৩ মার্চ, ২০২১ ০২:২৫ অপরাহ্ণ

শিক্ষক বাতায়নের সকল শিক্ষক- শিক্ষিকা ও আইসিটি জেলা অ্যাম্বাসেডর স্যারদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা https://www.teachers.gov.bd/content/details/895452


মোঃ মেরাজুল ইসলাম
০২ মার্চ, ২০২১ ১১:৫৩ অপরাহ্ণ

আপনার অনেক সময়, শ্রম ও চিন্তা ভাবনা করে নির্মিত কনটেন্টটি সত্যিই অপূর্ব এবং শ্রেণি উপযোগী। এটি শ্রেণিকক্ষে সঠিকভাবে উপস্থাপন করলে শিক্ষার্থীরা অনেক উপকৃত হবে। এই অনিন্দ্যসুন্দর কনটেন্ট এর জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা, সাথে সুন্দর উপস্থাপনার জন্য লাইক এবং পূর্ণ রেটিং।


লুৎফর রহমান
০২ মার্চ, ২০২১ ১১:৪৮ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো। আমার এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত ৫৪ তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে লাইক,গঠন মূলক মতামত ও রেটিং প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। কনটেন্ট লিংকঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/894975


মোঃ নূরল আলম
০২ মার্চ, ২০২১ ১১:২৯ অপরাহ্ণ

মান সম্মত এবং বাতায়নের সাথে থাকায় লাইক ও পূর্ন রেটিং সহ শুভ কামনা রইল। আমার বাতায়ন পেইজ ঘুরে আসার জন্য আমন্ত্রন রইল।