করোনা থেকে বাঁচতে স্বাস্থ বিশেষজ্ঞদের ৭ পরামর্শ……

এস এম মোজাম্মেল কবির ১১ এপ্রিল,২০২১ ৬৮ বার দেখা হয়েছে লাইক ১১ কমেন্ট ৫.০০ ()

করোনা নিয়ে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা আর ভীতি বাড়ছেই। বিশ্বের দেশে দেশে প্রতিদিনই আক্রান্ত ও মৃত্যুর সারি দীর্ঘ হচ্ছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন আবিষ্কার করলেও সব দেশে তার সরবরাহ পর্যাপ্ত নয়। কিছু ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়েও মাঝেমধ্যেই প্রশ্ন উঠছে। বাংলাদেশেও করোনার সংক্রমণ গত ২ সপ্তাহে ভয়াবহভাবে বেড়েছে। মৃত্যুতেও প্রতিদিন নতুন রেকর্ড তালিকাভুক্ত হচ্ছে।
করোনা নামক ভাইরাসটি একজন মানুষের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে কীভাবে ছড়ায়, এ নিয়ে বিশেষজ্ঞরা এখনও নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেননি। তবে বরাবরের মতোই সাধারণ কিছু সাবধানতা অবলম্বনের ওপরই জোর দিচ্ছেন তারা। যেসব সাবধানতা একজন ব্যক্তিকে আক্রান্ত হওয়া থেকে অনেকটাই ঝুঁকিমুক্ত রাখতে পারে। 

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দেয়া এরকমই ৭টি সাবধানতা তুলে ধরা হলোঃ-

১. গণপরিবহন: বাস, ট্রেন কিংবা অন্য কোনও গণপরিবহনের হাতল কিংবা আসনে করোনা ভাইরাস থাকতে পারে। তাই গণপরিবহন এড়িয়ে চলা বা সতর্কতার বিষয়ে জোর দিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যদি গণপরিবহনে চলতেই হয় সেক্ষেত্রে অবশ্যই মাস্ক পরা ও হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহার করা উচিত। 
২. কমক্ষেত্র: করোনা সংক্রমণের একটা বড় ক্ষেত্র হচ্ছে কর্মস্থল। অফিসে একই ডেস্ক কিংবা কম্পিউটার ব্যবহারে সংক্রমণ ঝুঁকি বেশি থাকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হাঁচি-কাশি থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ায়। যেকোনও জায়গায় এ ভাইরাস কয়েক ঘণ্টা, এমনকি কয়েকদিন পর্যন্ত সক্রিয় থাকতে পারে। ফলে অফিসের ডেস্কে বসার আগে কম্পিউটার, কিবোর্ড ও মাউস পরিষ্কার করে নিতে হবে।
৩. জনসমাগমস্থল: করোনার সংক্রমণ রোগে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বিষয়ে শুরু থেকে বলা হচ্ছে। যদিও বাংলাদেশে বিশেষ করে ঢাকার মতো ঘনবসতির শহরে তা মেনে চলা খুব কঠিন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেসব জায়গায় মানুষ বেশি জড়ো হয়, সেসব স্থান এড়িয়ে চলা বা বাড়তি সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। এরমধ্যে খেলাধুলার স্থান, সিনেমা হল কিংবা মসজিদ-উপাসনালয়ও রয়েছে। জুমার নামাজে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।
৪. ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান: করোনাকালীন অন্য সবকিছু বন্ধ থাকলেও সীমিত পরিসরে আর্থিক লেনদেন সচল রাখা হয়। অনেক সময় ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে গ্রাহকরা একই কলম বহুজনে ব্যবহার করেন। করোনায় আক্রান্ত কোনও ব্যক্তির ব্যবহৃত কলম পরবর্তীতে সুস্থ কেউ ব্যবহার করলেও আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। সেজন্য ব্যক্তিগত কলম নিয়ে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে যেতে হবে। এছাড়া এটিএম বুথ থেকেও সংক্রমণ ছড়ায়। কারণ বুথের একই বাটন বহু লোক ব্যবহার করেন। এক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে।
৫. লিফট: করোনা সংক্রমণের আরেকটি জায়গা হচ্ছে বাড়ি কিংবা অফিসের লিফট। লিফট ব্যবহারের সময় নির্ধারিত ফ্লোরে যাবার জন্য লিফটের বাটন অনেকে ব্যবহার করেন। একই বাটনে একাধিক ব্যক্তির আঙুলের স্পর্শ থেকে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। 
৬. টাকা-পয়সা: টাকা-পয়সাকে বলা হয় ‘হাতের ময়লা’। আসলে এই টাকা-পয়সাতেই সবচেয়ে বেশি জীবাণু লেগে থাকে। কারণ টাকা-পয়সা সবসময়ই এক হাত থেকে অন্য হাতে যায়। এতে করে অতীতেও নানা সংক্রামণ রোগ ছড়ানোর নজির রয়েছে।
গেল আগস্টে বাংলাদেশের একদল গবেষক জানিয়েছিলেন, তারা বাংলাদেশি কাগুজে নোট বা ধাতব মুদ্রায় এমন ধরনের ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি পেয়েছেন, যা সাধারণত মূল-মূত্রের মধ্যে থাকে। ফলে করোনার সংক্রমণ ঝুঁকি কমাতে টাকা-পয়সা লেনদেনের ক্ষেত্রেও অত্যন্ত সাবধান থাকতে হবে। 
৭. শুভেচ্ছা বিনিময়: আমরা সবসময়ই করকর্মনের মধ্য দিয়ে একে অন্যের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করি। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত এমন কোনও ব্যক্তির সঙ্গে হ্যান্ডসেক কিংবা কোলাকুলি করলে সুস্থ ব্যক্তিও আক্রান্ত হতে পারেন। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা এই করোনাকালীন করমর্দন বা কোলাকুলি না করার পরামর্শ দিচ্ছেন। 

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ মুজিবুর রহমান
২৪ মে, ২০২১ ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেয়ার জন্য অনুরোধ করছি।


মোঃ আবুল কালাম
১২ এপ্রিল, ২০২১ ০১:০৯ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন এবং নিরাপদে থাকবেন। আবারও ধন্যবাদ।


মোঃ সাইফুর রহমান
১২ এপ্রিল, ২০২১ ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

অনেক সুন্দর উপস্থাপন। লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা রইল। বাতায়নের সন্মানিত শ্রদ্ধেয় এডমিন, প্যাডাগোজি, রেটার মহোদয়, সকল সেরা কনটেন্ট নির্মাতা,সকল সেরা উদ্ভাবক, সকল সেরা নেতৃত্ব, সকল সেরা অনলাইন পারফর্মার ও সকল জেলা অ্যাম্বাসেডর, সকল সক্রিয় শিক্ষকবৃন্দ আমার আপলোডকৃত "কোষ বিভাজন " শিরোনামে ৬১তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে লাইক ও পূর্ণ রেটিং দেওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। ধন্যবাদ।


এস এম মোজাম্মেল কবির
১২ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ, আসুন নিজে সচেতন হই, স্বাস্থবিধি মেনে চলি, অন্যদেরকেও সচেতন করি।


লুৎফর রহমান
১১ এপ্রিল, ২০২১ ১১:১৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো। আমার এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত ৫৬ তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে লাইক,গঠন মূলক মতামত ও রেটিং প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। কনটেন্ট লিংকঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/913039 Blog link: https://www.teachers.gov.bd/blog-details/597999


এস এম মোজাম্মেল কবির
১২ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ, আসুন নিজে সচেতন হই, স্বাস্থবিধি মেনে চলি, অন্যদেরকেও সচেতন করি।


মোঃ নূরল আলম
১১ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

সুন্দর উপস্থাপন করে বাতায়নকে সমৃদ্ধি করায় লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভ কামনা রইল। সেই সাথে আমার আপলোডকৃত ৫০তম কনটেন্ট দেখে গঠন মুলক মতামত দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।


এস এম মোজাম্মেল কবির
১২ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ, আসুন নিজে সচেতন হই, স্বাস্থবিধি মেনে চলি, অন্যদেরকেও সচেতন করি।


মোহাম্মদ শাহাদৎ হোসেন
১১ এপ্রিল, ২০২১ ০৯:৪৭ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন এবং নিরাপদে থাকবেন। আবারও ধন্যবাদ।


এস এম মোজাম্মেল কবির
১২ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ, আসুন নিজে সচেতন হই, স্বাস্থবিধি মেনে চলি, অন্যদেরকেও সচেতন করি।


এস এম মোজাম্মেল কবির
১১ এপ্রিল, ২০২১ ০৯:৪৪ অপরাহ্ণ

নিজে সচেতন হই, স্বাস্থবিধি মেনে চলি, অন্যদেরকেও সচেতন করি।