শুভ জন্মদিন: হে বঙ্গবীর জেনারেল মুহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী

আব্দুল্লাহ আত তারিক ০১ সেপ্টেম্বর,২০২১ ৫৩ বার দেখা হয়েছে ১১ লাইক ১৯ কমেন্ট ৪.৯২ (১২ )

২৫ মার্চের কালরাত্রি পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হঠাৎ আক্রমণের আগেই বঙ্গবন্ধু ছাড়াই রাজনীতিবিদরা দেশ ছেড়ে কলকাতায় পালিয়ে গিয়েছিলেন। ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধুকেও গ্রেফতার করা হলে পুরো জাতি যখন নেতৃত্বহীন ও দিশেহারা, ঠিক সে সময়ে দুঃসাহসী এক সেনানায়কের আবির্ভাব ঘটে পাল্টা আক্রমণে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য। তিনি জেনারেল মুহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী। বাংলাদেশের ইতিহাসে তিনি কিংবদন্তির মহানায়ক। আজ মুক্তিযুদ্ধের সেই সর্বাধিনায়কের জন্মবার্ষিকী।


১৯৭১ সালের ৪ এপ্রিল সিলেটের তেলিয়াপাড়া চা-বাগানে ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের অধিনায়কদের নিয়ে এক ঐতিহাসিক বৈঠক করেন জেনারেল ওসমানী। লে. কর্নেল মো: আবদুর রব, মেজর জিয়াউর রহমান, মেজর কাজী মো: শফিউল্লাহ, মেজর খালেদ মোশাররফ, মেজর কাজী নুরুজ্জামান, কর্নেল সালেহউদ্দিন, মোহাম্মদ রেজা, মেজর শাফায়াত জামিল, মেজর মঈনুল হোসেন চৌধুরী, মেজর নূরুল ইসলাম, ক্যাপ্টেন শমসের মবিন চৌধুরী, বেঙ্গল রেজিমেন্টের আরো অনেক অফিসার, ভারতীয় বিএসএফ প্রধান রুস্তমজি ও ব্রিগেডিয়ার পান্ডেসহ আরো অনেক সামরিক ব্যক্তিত্ব ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। ওসমানী তার দিকনির্দেশনা ও যুদ্ধপরিকল্পনা সবাইকে অবহিত করেন এবং সর্বাত্মক যুদ্ধ শুরুর নির্দেশ দেন।এ ঐতিহাসিক বৈঠকেই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডাররা সর্বসম্মতিতে কর্নেল ওসমানীকে মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক মনোনীত করেন এবং দেশের এ ক্রান্তিলগ্নে রাজনীতিবিদদের একটি অস্থায়ী সরকার গঠনের পরামর্শ দেয়ার জন্য তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়। এ মিটিংয়ের সিদ্ধান্তই বদলে দেয় দেশের ভাগ্য। ওসমানীর নেতৃত্বে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে ১২ এপ্রিল অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকার এক ঘোষণায় কর্নেল ওসমানীকে মুক্তিবাহিনী গঠন করা ও মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়ে কেবিনেট মন্ত্রীর পদমর্যাদায় তাকে বাংলাদেশের সশস্ত্রবাহিনীর সর্বাধিনায়ক ও সেনাবাহিনী প্রধান নিযুক্ত করে শপথ গ্রহণ করানো হয়।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সর্বাধিনায়ক কে? প্রথম সেনাপ্রধান ও প্রথম জেনারেল কে? বাংলাদেশের কোন সেনা অফিসার বিশ্বের চার চারটি বড় যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন এবং তিনটি দেশের সেনাবাহিনীতে চাকরি করার অভিজ্ঞতা ছিল? কোন সামরিক অফিসার অবসরকালীন সময়ে দেশের ক্রান্তিলগ্নে স্বাধীনতা যুদ্ধে সশস্ত্রবাহিনীর নেতৃত্ব দেন? ইত্যাকার মহা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর এ দেশবাসীর অনেকেরই, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে অজানা। বিরল এ অবস্থানের অধিকারী হলেন জেনারেল মুহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী।

এ বীর সিপাহসালার শুধু মুক্তিযুদ্ধই নয়, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ, ১৯৪৭ ও ১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তানের দু’টি যুদ্ধেও বীরত্বের সাথে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

জ্যেষ্ঠতা, অভিজ্ঞতা, দেশপ্রেম, ধর্মীয় মূল্যবোধ ও জাতীয়তাবাদী আদর্শে অনুপ্রাণিত ওসমানীই মুক্তিযুদ্ধের কমান্ডার-ইন-চিফ হিসেবে নিয়োজিত হন মুজিবনগর সরকার কর্তৃক। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য যুদ্ধবিদ্যার সুনিপুণ কারিগর অসাধারণ সাহসী, তেজস্বী ও নির্ভীক সেনানায়ক জেনারেল ওসমানীর সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও সুদক্ষ নেতৃত্বে দ্রুতগতিতে মুক্তিযুদ্ধ বেগবান হয়। তিনি বাংলাদেশকে ১১টি সেক্টরে ভাগ করে গেরিলা যুদ্ধ শুরু করেন। অতঃপর তিনটি নিয়মিত ব্রিগেড (জেড, কে ও এস ফোর্স) সৃষ্টি করেন। কয়েক মাসের ব্যবধানে নবগঠিত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কাছে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী যোদ্ধা পাকিস্তানি বাহিনী নাস্তানাবুদ হতে থাকে, বিভিন্ন যুদ্ধে শোচনীয় পরাজয় বরণ করতে থাকে এবং ৯ মাসেরও কম সময়ে বিস্ময়কর বিজয় অর্জিত হয়।

১৯৪৮ সালে পাকিস্তানের কোয়েটা স্টাফ কলেজ থেকে গ্র্যাজুয়েশন লাভ করেন জে. ওসমানী। ১৯৪৯ সালে চিফ অব জেনারেল স্টাফের ডেপুটি নিযুক্ত হন। ১৯৫০ সালে যশোর সেনানিবাসে ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের প্রথম ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক নিযুক্ত হন এবং চট্টগ্রাম সেনানিবাসে ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা ও এর পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত তৎকালীন পূর্ববাংলার আরো কয়েকটি আঞ্চলিক স্টেশনের দায়িত্বও তিনি সফলতার সাথে পালন করেন? পরে ১৪তম পাঞ্জাব রেজিমেন্টের নবম ব্যাটালিয়নের রাইফেলস কোম্পানির পরিচালক, ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলসের (ইপিআর) অতিরিক্ত কমান্ড্যান্টের দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৫৫ সালের ১২ ডিসেম্বর পাকিস্তান সেনাসদরে মিলিটারি অপারেশন ডাইরেক্টরেটে জেনারেল স্টাফ অফিসার গ্রেড-১ হিসেবে এবং ১৯৫৬ সালের ১৬ মে কর্নেল পদে পদোন্নতি পেয়ে মিলিটারি অপারেশন ডাইরেক্টরেটে ডেপুটি ডাইরেক্টরের দায়িত্ব নিযুক্ত হন। ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধে তিনি বীরত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। এ সময় তিনি আন্তর্জাতিক সংস্থা সিয়াটো ও সেন্টোতে পাকিস্তান বাহিনীর প্রতিনিধিত্ব করেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কর্মরত থাকাকালীন ওসমানী একজন স্পষ্টভাষী, স্বাধীনচেতা, নির্ভীক কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত ছিলেন এবং বাঙালি সেনাদের অধিকার রক্ষার্থে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।

তিনি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘চল চল চল’ গানটিকে ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের মার্চ/রণসঙ্গীত হিসেবে মনোনীত করে সরকারের অনুমোদন লাভে সক্ষম হন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে তিনি অত্যন্ত সম্মান ও মর্যাদার অধিকারী ছিলেন এবং তাকে ‘পাপা টাইগার’, ‘টাইগার ওসমানী’, ‘বঙ্গশার্দূল’ প্রভৃতি নামে অলঙ্কৃত করা হয়েছে। ওসমানী ১৯৬৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেন।

ওসমানীর গভীর দেশপ্রেম ও বাঙালিদের অধিকার আদায়ে তার আপসহীন মনোভাব সম্পর্কে বঙ্গবন্ধু অবহিত ছিলেন। জাতীয় স্বার্থে বঙ্গবন্ধু তাকে রাজনীতিতে যোগ দেয়ার জন্য আহ্বান জানান। ১৯৭০ সালের জুলাই মাসে ওসমানী আওয়ামী লীগে যোগ দেন এবং সাধারণ নির্বাচনে বালাগঞ্জ, ফেঞ্চুগঞ্জ, গোপালগঞ্জ ও বিশ্বনাথসহ চার এলাকায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

অবসরের প্রায় চার বছর পর মাতৃভূমির চরম সঙ্কটময় মুহূর্তে জেনারেল ওসমানী আবার সামরিক পোশাক পরে বাংলাদেশ বাহিনীর নেতৃত্ব গ্রহণ করেন, যা বিশ্বে বিরল উদাহরণ।

জাতির প্রতি দায়িত্ব পালনের স্বীকৃতিস্বরূপ সরকার ওসমানীকে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর জেনারেল পদে উন্নীত করেন এবং অসাধারণ বীরত্বের জন্য ‘বঙ্গবীর’ উপাধিতে ভূষিত করেন।

১৯৮৪ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি মহান জননেতা বঙ্গবীর জেনারেল এম এ জি ওসমানী লন্ডনের সেন্টপল হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ২০ ফেব্রুয়ারি পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে তার অন্তিম ইচ্ছানুযায়ী হজরত শাহজালাল রহ:-এর দরগা শরিফসংলগ্ন তার মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হয়।

চিরকুমার জেনারেল ওসমানী তার সারা জীবন কাটিয়েছেন এ দেশের মাটি ও মানুষের মুক্তির জন্য, উন্নতির জন্য ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য। উৎসর্গ করেছেন তার জীবন-যৌবন, সহায়-সম্পত্তি ও সব কিছু। অবহেলিত বাঙালি মুসলমানদের ব্রিটিশ-ভারতীয় সেনাবাহিনীতে প্রবেশের জন্য তিনি সব প্রচেষ্টা চালিয়ে ছিলেন এবং এর সফলতাও অর্জন করেছেন ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট প্রতিষ্ঠা করার পথকে উন্মুক্ত করে এবং পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে ১৯৪৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রথম ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট প্রতিষ্ঠার পর একে একে এ রেজিমেন্ট সমৃদ্ধ হতে থাকে, যা স্বাধীনতা যুদ্ধে নিয়ামকের ভূমিকা পালন করে। অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে তিনি কখনো পিছু হটেননি। বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে যত দিন টিকে থাকবে তত দিন বঙ্গবীর জেনারেল ওসমানী বেঁচে থাকবেন এ দেশের মাটি ও মানুষের মনের মণিকোঠায় মুক্তির সুউজ্জ্বল আলোকবর্তিকা হিসেবে।


তথ্যসুত্র: উইকিপিডিয়া 


উপস্থাপক,

আব্দুল্লাহ আত তারিক

*** জেলা অ্যাম্বেসেডর, মাগুরা সদর, মাগুরা ***

*** সেরা কনটেন্ট নির্মাতা মার্চ - ২০২১ ***

*** a2i - Aspire to Innovate ও বাংলা ভাষা শিক্ষক পর্ষদের যৌথ উদ্যোগে ব্যাবহারিক বাংলা বানান ও প্রমিত উচ্চারণচর্চা বিষয়ক ২ (দুই) দিনব্যাপী অনলাইন প্রশিক্ষণে ৬ষ্ঠ স্থান ***



মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ মুজিবুর রহমান
০২ অক্টোবর, ২০২১ ০৪:৩৬ অপরাহ্ণ

অভিনন্দন


আকলিমা আক্তার
০৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:২০ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা রইল। আমার কন্টেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত আশা করছি।


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৪:১৩ অপরাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


মোঃ ফারুক হোসেন
০৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:০৬ পূর্বাহ্ণ

লাইক, পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য রইলো শুভকামনা। আমার আপলোডকৃত কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখে লাইক,পূর্ণ রেটিং ও আপনার মূল্যবান মতামত দেওয়ার জন্য অনুরোধ রইলো।


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৪:১৩ অপরাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


জাহিদুল ইসলাম
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:২৮ অপরাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। আমার এ পাক্ষিকের কনটেন্ট এ রেটিং করার অনুরোধ করছি। আমার কনটেন্ট লিংক- https://www.teachers.gov.bd/content/details/1114272


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:০০ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


লুৎফর রহমান
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০১:৫০ অপরাহ্ণ

Best wishes with full ratings. Sir/Mam. Please give your like, comments and ratings to watch my all contents PowerPoint, blog, image, video and publication of this fortnight. Link: PowerPoint: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1099411 Blog: https://www.teachers.gov.bd/blog-details/619684 Video: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1099955 Video 2: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1110246 Publication: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1098917 Batayon ID: https://www.teachers.gov.bd/profile/Lutfor%20Rahman


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:০০ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


কানিজ মায়েরা
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০১:৩৭ অপরাহ্ণ

শুভকামনা


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:০০ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


আজিজুল হক
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ

সুন্দর তথ্য নির্ভর লেখা জন্য শুভকামনা রইল।


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


মোঃ সাইফুর রহমান
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:৪০ পূর্বাহ্ণ

চমৎকার উপস্থাপন লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। "জীবকোষ " শিরোনামে আমার আপলোডকৃত ৭৭ তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান লাইক, রেটিং, মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


মোঃ মেরাজুল ইসলাম
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:২৫ পূর্বাহ্ণ

✍️ সম্মানিত, বাতায়ন প্রেমী শিক্ষক-শিক্ষিকা , অ্যাম্বাসেডর , সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা , প্রেডাগোজি রেটার আমার সালাম রইল। রেটিং সহ আমি আপনাদের সাথে আছি। আমার বাতায়ন বাড়িতে আপনাদের আমন্ত্রণ রইলো। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন , নিজে সুস্থ্ থাকবেন, প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখবেন। ধন্যবাদ।🌹


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।


সুজিত দেব
০১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৮:০৮ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা ও ধন্যবাদ। আমার এ পাক্ষিক এর কনটেন্ট দেখার আমন্ত্রণ রইলো।


আব্দুল্লাহ আত তারিক
০২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ণ

আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমার কন্টেন্ট এর মতামত সহ লাইক কমেন্ট দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করি। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন । আপনি ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ ।