স্ট্রোকের লক্ষণ চেনার উপায় ‘বি ফাস্ট’

নাহিদাল আরজিন ২২ নভেম্বর,২০২২ ১০১ বার দেখা হয়েছে ১৯ লাইক ১৩ কমেন্ট ৪.২৯ (২১ )

স্ট্রোক মস্তিষ্কের মারাত্মক রোগ। এতে মস্তিষ্কের রক্তনালিতে জটিলতা দেখা দেয়। হঠাৎই কার্যকারিতা হারায় মস্তিষ্কের একাংশ। মস্তিষ্কের কোষ অত্যন্ত সংবেদনশীল। অক্সিজেন ও শর্করা সরবরাহে একটু হেরফের হলেই কোষগুলো মারা যেতে শুরু করে। যদি মস্তিষ্কের কোনো অংশের রক্ত চলাচল বিঘ্নিত হয় (আঘাতজনিত ছাড়া) এবং তা ২৪ ঘণ্টার বেশি স্থায়ী হয় অথবা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রোগী মৃত্যুবরণ করে, তাহলে এ অবস্থার নাম স্ট্রোক।স্ট্রোকের কারণে প্যারালাইসিসের (পক্ষাঘাত) মতো মারাত্মক উপসর্গ দেখা যায়, কিছু স্ট্রোকে রোগীর মৃত্যুও হতে পারে। স্ট্রোক হলে শরীরের যেকোনো এক দিকে হাত-পা ও মুখমণ্ডল প্যারালাইসিস হয়ে থাকে। মস্তিষ্কের যেসব অংশ শরীরের যেসব অংশকে নিয়ন্ত্রণ করে, সেসব অংশ স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে শরীরের ওই স্থানগুলো অকেজো হয়ে পড়ে। স্ট্রোকের ধরন ও পরিমাপ অনুযায়ী প্যারালাইসিসের ধরন ও পরিমাপ নির্ভর করে।

স্ট্রোকের লক্ষণ

স্ট্রোকের লক্ষণ ও উপসর্গ সহজে চেনার জন্য বিশ্বব্যাপী ‘বি ফাস্ট’ বাক্যবন্ধ ব্যবহার করা হয়।

বি অর্থ ব্যালেন্স বা ভারসাম্য। হঠাৎ ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যাওয়া।

ই অর্থ আই বা দৃষ্টি। হঠাৎ দেখতে সমস্যা।

এফ অর্থ ফেস বা মুখমণ্ডল। হঠাৎ মুখের একদিক বাঁকা হয়ে যাওয়া।

এ অর্থ আর্ম বা বাহু। হঠাৎ এক হাত দুর্বল হয়ে যাওয়া।

এস অর্থ স্পিচ বা হঠাৎ কথা জড়িয়ে আসা।

টি অর্থ টাইম বা সময়। এসব লক্ষণ দেখামাত্রই যত দ্রুত সম্ভব রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসার চেষ্টা করা।

স্ট্রোকের প্রকারভেদ

মস্তিষ্ক আক্রান্ত হওয়ার ধরনের ওপর ভিত্তি করে স্ট্রোক দুই প্রকারের হতে পারে।

ইসকেমিক স্ট্রোক: মস্তিষ্কের রক্তনালিতে রক্ত জমাট বেঁধে, অথবা শরীরের কোনো অংশ, বিশেষ করে হৃৎপিণ্ড থেকে জমাট বাঁধা রক্ত মস্তিষ্কের রক্তনালিতে এসে রক্তপ্রবাহ বন্ধ হয়ে যে স্ট্রোক হয়, তা ইসকেমিক স্ট্রোক। এ ধরনের স্ট্রোকে রোগীর মৃত্যুর আশঙ্কা কম থাকলেও ভালো হতে দীর্ঘ সময় লাগে। এতে অনেক রোগী স্থায়ী পঙ্গুত্ব নিয়ে বেঁচে থাকেন।

হেমোরেজিক স্ট্রোক: মস্তিষ্কের কোনো রক্তনালি ফেটে গিয়ে মস্তিষ্কের ভেতর রক্ত ছড়িয়ে পড়লে তা হেমোরেজিক স্ট্রোক। এ ধরনের স্ট্রোকে উপসর্গ নির্ভর করে মস্তিষ্কের কোন অংশ কীভাবে কতটুকু ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তার ওপর। অনেক ক্ষেত্রেই রোগীর উচ্চ রক্তচাপ থাকে এবং রোগী অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে আসেন। এই স্ট্রোকে রোগীর মৃত্যুর আশঙ্কা অনেক বেশি থাকে। যাঁরা প্রাথমিক ধকল কাটিয়ে উঠতে পারেন, দ্বিতীয়বার রক্তক্ষরণের ঝুঁকি তাঁদের কম থাকে। স্থায়ী পঙ্গুত্বের আশঙ্কাও কম।

স্ট্রোকের চিকিৎসা

স্ট্রোকের ধরন ও প্রকারভেদ অনুসারে স্ট্রোকের চিকিৎসা বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। তবে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো স্ট্রোকের লক্ষণ খেয়াল করে রোগীকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া। স্ট্রোক চিকিৎসার প্রধান অংশ হলো নার্সিং এবং নিয়মিত চিকিৎসার মাধ্যমে রোগীর সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ ও পরিমিত ব্যবস্থা গ্রহণ।

ইসকেমিক স্ট্রোকের ক্ষেত্রে রোগীকে যদি তিন-চার ঘণ্টার মধ্যে হাসপাতালে নিয়ে আসা যায়, তাহলে থ্রম্বোলাইসিস (ইনজেকশনের মাধ্যমে জমাটবদ্ধ রক্ত গলিয়ে ফেলা) ও থ্রমবেকটমির (স্টেন্টের মাধ্যমে জমাটবদ্ধ রক্ত বের করে নিয়ে আসা) মাধ্যমে কিছু রোগীর চিকিৎসা করা সম্ভব। অন্যান্য ক্ষেত্রে চিকিৎসক প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগীর সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে ব্যবস্থাপত্র দেবেন অথবা ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেবেন।

হেমোরেজিক স্ট্রোকের ক্ষেত্রে প্রাথমিক চিকিৎসার পাশাপাশি সার্জারি, সার্জিক্যাল ক্লিপিং অথবা কয়েলিংয়ের মাধ্যমে চিকিৎসা করা সম্ভব। তবে স্ট্রোকের চিকিৎসা সম্পূর্ণ নির্ভর করে রোগীর অবস্থা, স্ট্রোকের ধরন এবং রোগী কত দ্রুত হাসপাতালে পৌঁছেছেন, তার ওপর।

এ ছাড়া কিছু ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হয়। যেমন শ্বাসনালিতে সমস্যা হলে কিংবা শ্বাস নেওয়া বন্ধ হয়ে গেলে মুখে মুখ লাগিয়ে শ্বাস দিতে হবে। বমি হলে মাথা এক দিকে কাত করে দিতে হবে। মনে রাখতে হবে, আক্রান্ত ব্যক্তিকে কোনো খাবার বা পানি খাওয়ানো যাবে না। অজ্ঞান রোগীর ক্ষেত্রে শ্বাসনালি, শ্বাসপ্রশ্বাস ও রক্ত সঞ্চালন নিয়মিত রাখতে হবে। রোগীকে এক দিকে কাত করে শোয়াতে হবে। চোখ ও মূত্রথলির যত্ন নিতে হবে, প্রয়োজনে ক্যাথেটার ব্যবহার করতে হবে। রোগীর সঙ্গে কমপক্ষে দুজন ব্যক্তিকে হাসপাতালে যেতে হবে। এতে পরীক্ষা ও চিকিৎসা সবকিছুই কিছুটা দ্রুতগতিতে করা সম্ভব হবে।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
বীণা মিত্র
২৯ নভেম্বর, ২০২২ ০১:৩৬ অপরাহ্ণ

🌺🌹🌺❤️ লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা। আপনার প্রেজেনটেশন অনেক সুন্দর ,মানসম্মত আপলোড করেছেন। আপনার সফলতা কামনা করি। আমার ৪৮ তম কন্টেন্ট, ব্লক, প্রকাশনা - দেখে আপনার মূল্যবান মতামত দেয়ার বিনীত অনুরোধ রইল। https://www.teachers.gov.bd/content/details/1336465 🌺🌹🌺❤️


বশির আহমেদ
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো।


নাহিদাল আরজিন
২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০৩:৪৮ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


বশির আহমেদ
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো।


নাহিদাল আরজিন
২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০৩:৪৮ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


মোছাঃ হোসনে আরা
২২ নভেম্বর, ২০২২ ১০:১৮ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট, ভিডিও কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান লাইক রেটিং সহ মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


নাহিদাল আরজিন
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ


লুৎফর রহমান
২২ নভেম্বর, ২০২২ ১০:০২ অপরাহ্ণ

🌹🌷Thanks for the excellent content and best wishes including full ratings. Please give your likes, comments and ratings to watch all my content.♥️♥️


নাহিদাল আরজিন
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ


প্রবীর রঞ্জন চৌধুরী
২২ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:৩৫ অপরাহ্ণ

শুভ কামনা।


নাহিদাল আরজিন
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ


রুমানা আফরোজ
২২ নভেম্বর, ২০২২ ০২:৫৪ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। বাতায়নে এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। আমার কন্টেন্ট লিঙ্কঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/1321411


নাহিদাল আরজিন
২৩ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৯ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ