শিক্ষক কেন্দ্রিক ও শিক্ষার্থী কেন্দ্রিক পদ্ধতির সেকাল একাল

মোছাঃ হোসনে আরা ২৪ নভেম্বর,২০২২ ৮০ বার দেখা হয়েছে ১২ লাইক ২১ কমেন্ট ৪.৭৫ (১২ )

শিক্ষক কেন্দ্রিক ও শিক্ষার্থী কেন্দ্রিক পদ্ধতিঃ 

প্রাচীনকালে গুরু-শিষ্য ভিত্তিক শিক্ষা ব্যবস্থায় শিষ্য গুরুর গৃহে একটি নির্দিষ্ট কাল পর্যন্ত অবস্থান করত, গুরুর সকল রকম কাজে সাহায্য করত। গুরু শিষ্যের সকল ধরনের শিক্ষার ভার গ্রহণ করতেন। জ্ঞান, দক্ষতা, আচার - আচারণ সকল প্রকারের শিক্ষা গুরু মুখোমুখি                       ( One - to - one ) পদ্ধতিতে দান করতেন এবং শিষ্য শ্রদ্ধাবণত চিত্তে তা গ্রহণ করত। এই শিক্ষা ব্যবস্থার দিক ছিল গুরু হতে শিষ্য যাকে সে সহজ কথ্য ভাষায় বলা হত                        " জগ -  মগ তত্ত্ব "।

এরপর যখন ক্রমন্বয়ে প্রাতিষ্ঠানিক বা বিদ্যালয় ভিত্তিক এক হতে বহু ( One - to - many ) শিক্ষা ব্যবস্থা চালু হলো তখন একজন শিক্ষক সকল শিক্ষার্থীকে সকল বিষয় শিক্ষা দিতে শুরু করলেন। পরবর্তীতে শিক্ষার্থী সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে এবং বিষয় সম্পর্কিত জ্ঞান বহুধা বিভক্ত হয়ে যাওয়ায় বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক একটি শ্রেণিতে একটি নির্দিষ্ট সময় ধরে একটি বিষয় পড়াতে শুরু করলেন। এই সময়ে উন্নত বিশ্বে শিক্ষা সংক্রান্ত গবেষণা কাজ শুরু হলো এবং সময়ের সাথে শিক্ষার "জগ - মগ তত্ত্ব" দেখা গেলো। কথাটি কোনো গুরুত্ব বহন করেনা। জ্ঞান কখনো এক পাত্র থেকে অন্য পাত্রে ঢালা যায় না এবং শিক্ষার্থী নিজেও শূন্য জ্ঞান সহকারে শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করেনা। 

গবেষণার ফলাফল অনুধাবন করে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ ভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থায় শিক্ষার্থীর দলগত, একক সক্রিয় অংশগ্রহণের প্রয়োজনীয়তাও দেখা দিলো। ক্রমন্বয়ে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাব্যবস্থা শিক্ষক কেন্দ্রিক হতে শিক্ষার্থী ক্রেন্দ্রিক হওয়ার প্রয়োজনীয়তা অনুভূত হয়। 

আমাদের দেশে শিক্ষার্থী সংখ্যা অত্যাধিক হওয়ায় দীর্ঘকাল প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থা শিক্ষক কেন্দ্রিক ছিল এবং শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রধানত বক্তৃতা নির্ভর পদ্ধতি ব্যবহার করতেন। 

শিক্ষক কেন্দ্রিক পদ্ধতির দুর্বলতা হলো এতে শিক্ষক পাঠ্যসূচি অনুযায়ী মূল বিষয়বস্তু তুলে ধরেন, শিক্ষার্থী শুধু শ্রোতা হয়ে শোনে। কোনো বিশেষ অংশ সম্পর্কে শিক্ষক আলোকপাত করেন, মাঝে মাঝে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রাখেন, শিক্ষার্থী মনোযোগ সহকারে শুনছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখেন, বাড়ির কাজ প্রদান করে সকল প্রকার দায়িত্ব পালন করছেন ভেবে সন্তুষ্টি লাভ করেন। 

অপরপক্ষে শিক্ষার্থী - কেন্দ্রিক পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীর চিন্তন শক্তি সচল থাকে, প্রত্যেকটি বিষয়বস্তু সে সঙ্গে সঙ্গে আত্মীকরণের চেষ্টা করে, নিজের পূর্ব জ্ঞানের সঙ্গে দিনের পাঠ্যবিষয়বস্তুর জ্ঞানের সম্পর্ক স্থাপন করে, জ্ঞানের গভীরতা উপলব্ধি করে শিক্ষকের নিকট খোলামেলা প্রশ্ন করে, সহপাঠী এবং শিক্ষকের সাথে তার্কিকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে বিষয়বস্তু উপস্থাপনের মোড়ও ঘুরিয়ে দিতে পারে। অর্থাৎ প্রয়োজনবোধে শিক্ষার্থী নিজস্ব চিন্তাধারা দ্বারা শিক্ষকের বা পুস্তকের চিন্তাকে প্রতিস্থাপিত করার উদ্যোগ নেয়। প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশে প্রবেশ করে মেধাবী ও চিন্তাশীল শিক্ষার্থী প্রয়োজনবোধে নিজের উন্নত চিন্তার স্বপক্ষে স্বীকৃতি দাবি করে। 

প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ তায়না কায়ভোলা ( Tanina Kaivola ) বলেন,) বলেন, " Any method can, in principle be used in either a teacher - centered way which focuses on the transmission of disciplinary content or in a student - centered way which is more directly concerned with the conceptual and skill development of the students ".

অর্থাৎ " শিক্ষণ-শিখনের যে কোনো পদ্ধতি শিক্ষক কেন্দ্রিক ব্যবস্থায় অথবা শিক্ষার্থী কেন্দ্রিক ব্যবস্থায় প্রয়োগ করা সম্ভব। শিক্ষক কেন্দ্রিক ব্যবস্থা বিষয়বস্তু অত্যন্ত ধারাবাহিকভাবে উপস্থাপনের উপর গুরুত্ব প্রদান করে এবং শিক্ষার্থী কেন্দ্রিক ব্যবস্থা মূলত শিক্ষার্থীর ধারণা গঠন ও দক্ষতা উন্নয়নের সাথে জড়িত।"

তায়না আরো বলেন, " The crucial indicator of a student-centered approach is the breadth of consideration undertaken by the teacher in designing the curriculum, the range of teaching and assessment methods adopted to achieve aims in the most appropriate manner and learning climate developed within the department ".

অর্থাৎ "শিক্ষার্থী কেন্দ্রিক ব্যবস্থায় শিক্ষক শিক্ষাক্রম ( শ্রেণিকক্ষেও উপযোগী করে ) সাজানোতে প্রচুর ভাবনা চিন্তা করেন, পাঠের উদ্দেশ্য সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য ও মূল্যায়ন কৌশলের সার্থকতা সম্বন্ধে সচেতন হয়ে অত্যন্ত সঠিক আচরণের প্রয়োগ করেন এবং শিখন পরিবেশের  গঠন সম্পর্কেও সচেতন থাকেন"। 

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
ফিরোজ আহমেদ
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৬:৪৪ অপরাহ্ণ

Best wishes for you with likes and full ratings. I humbly request you to view my uploaded content and give your feedback with like and full rating.


শেখ মোঃ সোহেল রানা
২৬ নভেম্বর, ২০২২ ০৩:০৫ অপরাহ্ণ

আপনার জন্য শুভকামনা রইলো।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:৩০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


প্রবীর রঞ্জন চৌধুরী
২৬ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:১৬ পূর্বাহ্ণ

শুভ কামনা।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:৩০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৮:২৯ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা ও ধন্যবাদ।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:৩০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


শামীমা পারভীন
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:১৯ অপরাহ্ণ

আপনাকে চমৎকার উপস্থাপনার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:৩০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


নাহিদাল আরজিন
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৮:১৬ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে লাইক, রেটিং ও আপনার সু-চিন্তিত মতামত প্রত্যাশা করছি।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


নাহিদাল আরজিন
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৮:১৬ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে লাইক, রেটিং ও আপনার সু-চিন্তিত মতামত প্রত্যাশা করছি।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


মো:আবু বক্কর সিদ্দিক
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:৩০ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট, ভিডিও কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান লাইক রেটিং সহ মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


মোঃ মুজিবুর রহমান
২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট, ভিডিও কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান লাইক রেটিং সহ মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


মোছাঃ আমেনা খাতুন
২৪ নভেম্বর, ২০২২ ১১:১৩ অপরাহ্ণ

Best wishes.


মোছাঃ হোসনে আরা
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:২৯ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার


তন্ময় কুমার মণ্ডল
২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:৩২ অপরাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইল। উপস্থাপন বেশ চমৎকার। আপনার প্রোফাইল দর্শন করলাম যথেষ্ট প্রাণময় কর্ম-তৎপরতা। একবাক্যে অসাধারণ। আপনার স্বর্ণোজ্জ্বল আগামী ভবিষৎ প্রার্থণা করছি, সেই সাথে আমার প্রোফাইল দর্শনের বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি এবং আমার কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখে পূর্ণ-রেটিং দেওয়ার অনুরোধ রইল প্রিয় সহকর্মী যদিও জানি যে, আমার পূর্বাপর কন্টেন্ট ও ব্লগে আপনি পূর্ণ রেটিং ও লাইক করেছেন, তাই আরো একবার আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আপনার মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।


মোছাঃ হোসনে আরা
২৪ নভেম্বর, ২০২২ ১০:৩৮ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ স্যার