পরীক্ষায় ভাল ফলের প্রতিফলন উচ্চশিক্ষা ও কর্মজীবনে দেখা যাচ্ছে না কেন।

ফিরোজ আহমেদ ২৯ নভেম্বর,২০২২ ৫৪ বার দেখা হয়েছে ১৭ লাইক ১২ কমেন্ট ৫.০০ (১৭ )

বাংলাদেশে গত সোমবার এসএসসি পরীক্ষার যে ফলাফল প্রকাশ হয়েছে সেখানে পাসের হার গত বছরের চাইতে কিছুটা কম হলেও জিপিএ ফাইভের হার আগের বছরের তুলনায় প্রায় দেড় গুণ বেড়েছে। কিন্তু শিক্ষার্থীদের অনেকেরই ভালাফলের প্রতিফলন তাদের কর্মজীবনে সেভাবে দেখা যাচ্ছে না।

গত কয়েক দশক ধরেই এসএসসিসহ বাংলাদেশের অন্যান্য বোর্ড পরীক্ষার পাসের হার গড়ে ৮৫-৯৫ শতাংশের মধ্যে থাকছে । অথচ গত তিন দশক আগেও এসএসসি বা তৎকালীন মেট্রিক পরীক্ষায় পাসের হার থাকতো ৩০ থেকে ৫০ শতাংশের মধ্যে। এর পেছনে গ্রেডিং পদ্ধতি এবং শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবর্তনকে বড় কারণ বলে মনে করছেন শিক্ষাবিদরা। তারা বলছেন, শিক্ষার্থীদের শেখানোর পরিবর্তে তাদের মুখস্থ করিয়ে ভাল ফল করার ওপরেই কতো কয়েক দশক ধরে জোর দেয়া হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি অস্থির প্রতিযোগিতা হচ্ছে জিপিএ ফাইভ নিয়ে।

খাতা মূল্যায়নের শিথিলতার কারণেও ফলাফলে এতো আমূল পরিবর্তন এসেছে।

ভাল স্কোরের প্রতিফলন কতোটা

প্রতিবছর এতো ভুরি ভুরি জিপিএ ফাইভ এবং হাজার হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতভাগ পাস নিয়ে প্রায়ই সমালোচনা হয়। কারণ এই শিক্ষার্থীদের অনেকেরই জিপিএ-তে ভাল ফলের প্রতিফলন তাদের কর্মজীবনে সেভাবে দেখা যায় না।

নিয়োগকর্তা এবং শিক্ষাবিদরা প্রশ্ন তুলছেন পাসের হার যেভাবে বাড়ছে তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিক্ষার মান কতোটা বাড়ছে, সেটা নিয়ে। সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় মানের ঘাটতি লক্ষ্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা গবেষণা ইন্সটিটিউটের শিক্ষক আতিকুন নাহার।

তিনি বলেন, “ভর্তি পরীক্ষায় আমরা একজন ভাল স্কোর পাওয়া শিক্ষার্থীর কাছে যে সাধারণ জ্ঞান আশা করি। বেশিরভাগ সময় তা পাই না। বাংলা আর ইংরেজিতে তারা অনেক পিছিয়ে আছে। দুই বছর আগে তো ইংরেজিতে বড় ধস নেমেছিল। পাস মার্কসও দেয়া যাচ্ছিল না।”

তবে তিনি শিক্ষার্থীদের নয় বরং শিক্ষা পদ্ধতির ওপর দোষারোপ করেছেন। তার মতে, শিক্ষা ব্যবস্থা যতদিন পরীক্ষার ফল কেন্দ্রিক এবং সিলেবাস কেন্দ্রিক থাকবে, ততদিন মানের ক্ষেত্রে পরিবর্তন হবে না।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
kazi md shah alam
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১১:২৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ অনেক অনেক শুভকামনা রইল।


ফিরোজ আহমেদ
০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ

Many many thanks.


Abul Kalam
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১১:১৮ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। বাতায়নে এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


শেখ মোঃ সোহেল রানা
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:৩২ অপরাহ্ণ

আপনার জন্য শুভকামনা।


শেখ মোঃ সোহেল রানা
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:২৯ অপরাহ্ণ

আপনার জন্য শুভকামনা।


রুমানা আফরোজ
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ০৪:১৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। বাতায়নে এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। আমার কন্টেন্ট লিঙ্কঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/1321411


সন্তোষ কুমার বর্মা
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ

সুন্দর কন্টেন্ট উপস্থাপন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।


প্রবীর রঞ্জন চৌধুরী
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১২:৩০ অপরাহ্ণ

শুভ কামনা রইল।


সৈয়দ মোঃ আব্দুল হাছিব
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১২:২৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান লাইক রেটিং সহ মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


এম. এ. রশিদ
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ

খুবই সুন্দর ও মানসম্মত একটি উপস্থাপনা। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য রইল শুভকামনা।


মোঃ মুজিবুর রহমান
৩০ নভেম্বর, ২০২২ ০৫:২৬ পূর্বাহ্ণ

❤️🌹লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ অনেক অনেক শুভকামনা ।সেই সাথে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি 🌹🌹


সামসুন্নাহার
২৯ নভেম্বর, ২০২২ ০৯:৫৬ অপরাহ্ণ

❤️🌹লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ অনেক অনেক শুভকামনা ।সেই সাথে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি 🌹🌹