ওজন কমাতে কেন খাবেন লাল চাল-লাল আটার তৈরি খাবার?

নাহিদাল আরজিন ০৩ ডিসেম্বর,২০২২ ৭০ বার দেখা হয়েছে ১৭ লাইক ১০ কমেন্ট ৩.৭৫ (২৪ )

ভেতো বাঙালি’ তকমা ছাড়ানোটা কিন্তু বেশ কঠিন। আপনি হয়তো স্বাস্থ্যসচেতন হয়ে উঠছেন, চেষ্টা করছেন খাদ্যতালিকা থেকে দু-এক বেলা ভাত বা রুটিজাতীয় খাবারকে বিদায় দিতে। বাদ সাধলেন মা, ‘ভাত-রুটি না খেলে সারা দিন থাকবি কী করে?’ চলল খানেক তর্কবিতর্ক, মান-অভিমান। আবেগের লড়াইয়ে মায়েরই হয়তো জয় হলো। ভাত-রুটিই বহাল রইল। আবার আপনজনের কাছ থেকে বাধাবিপত্তি না এলেও অনেকের পক্ষেই আজীবনের অভ্যাস বদলে ভাত-রুটিকে বিদায় জানানো মুশকিল।

তাই ভাত-রুটিকে নিয়েই গড়ে তুলতে পারেন নতুন ধারার খাদ্যাভ্যাস। ওজন কমাতে লাল চাল-লাল আটার তৈরি খাবার খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। শ্বেতশুভ্র চাল কিংবা আটা-ময়দা বাদ দিয়ে কেন খাবেন লাল চাল-লাল আটার তৈরি খাবার?

ক্যালরির হিসাব-নিকাশ

লাল চাল বা লাল আটার তৈরি খাবার থেকে ঠিক ততটাই ক্যালরি পাওয়া যায়, যা পাওয়া যায় সাদা চাল বা সাদা আটার তৈরি খাবার থেকে। স্বভাবতই মনে প্রশ্ন জাগে, তাহলে বেশি দাম দিয়ে লাল চাল–আটা কেন খাব? উত্তরটা লুকিয়ে আছে এগুলোর পরিপাকপ্রক্রিয়ার মধ্যে। পরিশোধিত (রিফাইন) চাল বা আটা (অর্থাৎ সাদা চাল বা সাদা আটা কিংবা ময়দা) থেকে তৈরি খাবার পরিপাক হয় খুব দ্রুত। অর্থাৎ এগুলো পাকস্থলিতে খুব বেশি সময় থাকে না। ফলে ভাত, রুটি বা পাউরুটির মতো ‘ভারী’ খাবার খাওয়ার কিছু সময় পরেই ফের ক্ষুধা বোধ করি আমরা। ক্ষুধা মেটাতে আবার হয়তো পুরি, শিঙাড়া, বিস্কুট বা কেকের মতো ‘হালকা’ নাশতার দ্বারস্থ হই। মূল খাবারের ফাঁকে ফাঁকে প্রতিনিয়ত এভাবে নাশতা যোগ করা হলে ওজন কিন্তু কমবে না। এমনকি নাশতা হিসেবে ডায়াবেটিস রোগীর উপযোগী (কম শর্করাসম্পন্ন) বিস্কুট খেলেও ক্যালরির মোট হিসাবে খুব একটা হেরফের হয় না; কারণ, এগুলোও পরিপাক হয়ে যায় চটজলদি। তাই আবার অনুভূত হয় ক্ষুধা। আবার নিতে হয় বাড়তি ক্যালরি। অথচ ভাত বা রুটি যেটিই খান, সেটি যদি ঢেঁকিছাঁটা অর্থাৎ লাল চাল বা লাল আটার হয়, তাহলে সহজে ক্ষুধা লাগে না। কারণ, এগুলোতে প্রচুর আঁশ থাকে। তাই পরিপাক হয় ধীরে ধীরে। দীর্ঘ সময় পাকস্থলীতে থাকে বলে অন্যান্য ‘টুকিটাকি’ খাবার গ্রহণের প্রবণতা কমে। এভাবেই কমে যায় সারা দিনে মোট ক্যালরি গ্রহণের পরিমাণ। ওজনও থাকে নিয়ন্ত্রণে।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোছাঃ হোসনে আরা
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:২৪ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট, ভিডিও কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান লাইক রেটিং সহ মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি।


নাহিদাল আরজিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:১১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


প্রবীর রঞ্জন চৌধুরী
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৩:৪৪ অপরাহ্ণ

শুভ কামনা।


নাহিদাল আরজিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:১১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


রুমানা আফরোজ
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। বাতায়নে এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। আমার কন্টেন্ট লিঙ্কঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/1321411


নাহিদাল আরজিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:১১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


বীণা মিত্র
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:০৭ পূর্বাহ্ণ

🌹🌺❤️ লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা। আপনার সফলতা কামনা করি। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ প্রত্যাশা করছি। https://www.teachers.gov.bd/content/details/1336465 🌹🌺❤️


নাহিদাল আরজিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:১১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ


জামিলা খাতুন
০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৮:১৬ পূর্বাহ্ণ

রেটিংসহ শুভ কামনা রইল।


নাহিদাল আরজিন
০৬ ডিসেম্বর, ২০২২ ০৯:১১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ