প্রকাশনা

খলিশা ফুলের মধু

মোঃ মামুন হোসেন ২১ ফেব্রুয়ারি ,২০২২ ৮২ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৪.০০ রেটিং ( )

খলিশা ফুলের গাছ পরিচিতিঃ

সুন্দরবনের ছোট থেকে মাঝারি গড়নের একটি গাছ হলো খলিশা। এটি ছোট বৃক্ষজাতীয় প্রকৃত ম্যানগ্রোভ উদ্ভিদ। খলিশা গাছ থেকে মিটার পর্যন্ত বাড়ে। এই গাছটি সুন্দরবনের সব জায়গায় দেখতে পাওয়া যায় না। বিরল এই উদ্ভিদ সাধারণত সুন্দরবনের বিচ্ছিন্নভাবে জন্মে সুন্দরবনে প্রচুর আলো পড়ে এমন পরিবেশে ভালো জন্মে। লবণাক্ততা যেখানে বেশি সেখানে এরা ভালো থাকে। খলিশা ফুল দেখতে কিছুটা সাদা রঙের। খলিশা ফুল ফুটলে সারাদিন মৌমাছি মধু সংগ্রহের জন্য ভিড় করে। বহুদূর থেকে সৌরভ পেয়ে মৌমাছি প্রজাপতির ছুটে আসে খলিশা ফল দেখতে কিছুটা মটর শুঁটির মতো। লম্বায় প্রায় থেকে সেন্টিমিটার । প্রতিটি ফলে একটি করে বীজ থাকে বীজ থেকে চারা গজায়

মার্চ-এপ্রিলে যখন ফুলে ফুলে ভরে ওঠে। মৌমাছিরা তখন সেই ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করে গাছে গাছে চাক বাঁধে। সুন্দরবনের খলিশা মধু বিখ্যাত উন্নত মানের। খলিশা গাছ সুন্দরবনের পশ্চিম বন বিভাগের সাতক্ষীরা রেঞ্জে বেশি পাওয়া যায়। খলিশা ফুলের মধু একমাত্র সুন্দরবনেই হয়।

এই ভাবে ফুলের আসা যাওয়ার প্রাকৃতিক নিয়ম অনুসারে সুন্দরবন থেকে প্রায় পাচ রকম মধু পাওয়া যায়। এর মধ্যে খলিশা ফুল স্বল্প স্থায়ী হওয়ায় এর দাম তুলনামূলক বেশি।

এই ফুল ফোটাফুটির মধ্যকার কয়েকটা দিনই কেবল মাত্র খলিশার দিন। মোহনীয় এই দিন গুলোতে শুধু খলিশায় ছেয়ে থাকে চারদিক, অন্যকোন গাছে অন্য কোন ফুল থাকেনা তখন। আর সেই ফুলের নির্জাস জমে যে মধু হয় সেটাই প্রথম গ্রেডের খলিশাফুলের মধু এই মধু সংগ্রহ করা হয় দিনক্ষনের হিসাব মিলিয়ে। প্রকৃতির বৈশিষ্টকে মাথায় রেখে। দিনক্ষনের হিসাব কাজে লাগিয়ে দক্ষ মৌয়ালরা এক চাক থেকে মধু সংগ্রহ করে এক পাত্রে রাখেন।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ রওশন জামিল
২৬ মার্চ, ২০২২ ০৩:০৮ অপরাহ্ণ

শ্রেণি উপযোগী ও চমৎকার উপস্থাপনার জন্য ধন্যবাদ। শুভ কামনা রইলো।।


মোঃ মেরাজুল ইসলাম
২৬ ফেব্রুয়ারি , ২০২২ ১২:৪১ অপরাহ্ণ

✍️ সম্মানিত, বাতায়ন প্রেমী শিক্ষক-শিক্ষিকা , অ্যাম্বাসেডর , সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা , প্রেডাগোজি রেটার আমার সালাম রইল। রেটিং সহ আমি আপনাদের সাথে আছি। আমার বাতায়ন বাড়িতে আপনাদের আমন্ত্রণ রইলো। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন , নিজে সুস্থ্ থাকবেন, প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখবেন। ধন্যবাদ।🌹


তাপস চন্দ্র সূত্রধর
২১ ফেব্রুয়ারি , ২০২২ ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

চমৎকার উপস্থাপনা লাইক ও পূর্নরেটিং সহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইল।চলতি পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত ৬৫তম কন্টেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত ও মূল্যবান রেটিং আশা করছি।https://www.teachers.gov.bd/content/details/1216665