প্রকাশনা

অশ্বগন্ধার উপকারিতা

মোঃ আলামিন ১৪ সেপ্টেম্বর,২০২৩ ৩১ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

অশ্বগন্ধা বা উইন্টারচেরী ( Winter cherry) আয়ুর্বেদ শাস্ত্রের নয়নমণি। ৩০০০ বছর ধরে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঔষধি ভেষজ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এর বৈজ্ঞানিক নাম ওইদেনিয়া সোমনিফেরা (Withania Somnifera)। সোমনিফেরা একটি ল্যাটিন শব্দ যার অর্থ ঘুমের উপর প্রভাব বিস্তারকারী। অসাধারণ কার্যকারিতার জন্য অশ্বগন্ধাকে ইন্ডিয়ান জিনসেং হিসেবেও অভিহিত করা হয়। নিয়মিত খেলে অশ্ব বা ঘোড়ার মতো শক্তি বৃদ্ধি হয়।

ন্যাচারালস অশ্বগন্ধার উপকারিতাঃ
১।
0,0অশ্বগন্ধ হঅশ্বগন্ধ হ
তাশা, দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপ কমায়।
২। শারিরীক শক্তি, স্টামিনা এবং এনডিউরেন্স বাড়ায়। মাসল বৃদ্ধি করে তাই বডি বিল্ডারদের জন্য বেস্ট চয়েজ।
৩। শিশুদের ব্রেইন ডেভেলপমেন্ট ও উচ্চতা বৃদ্ধিতে বিশেষ কার্যকর।
৪। সুগার লেভেল ব্যালেন্স করে ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ করে।
৫। ইনসোমনিয়া বা ঘুমের সমস্যার প্রাকৃতিক সমাধান অশ্বগন্ধা।
৬। নারী ও পুরুষের যৌন ও প্রজনন ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
৭। ইমিউনিটি বুস্ট করে ও তারুণ্য ধরে রাখে।

অশ্বগন্ধার উপকারিতাঃ
১। মানসিক উদ্বেগ, বিষন্নতা ও অবসাদ দূরীকরণে খুবি কার্করী।
২। রক্তের শর্করা কমিয়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে।
৩। রক্ত সল্পতা দূর করে।
৪। খারাপ কোলেস্টেরল মাত্রা দূত কমায়।
৫। স্নায়ু দূর্বলতা দূর করে এবং স্মৃতিশক্তি বর্ধক।
৬। অশ্বগন্ধা এস্ট্রোজেনের মাত্রা বাড়িয়ে কোলাজেন তৈরী করে যা ত্বকে রাখে চির তরুন এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বড়ায় চোখে পড়ার মতো।
৭। অশ্বগন্ধা শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি করে ও শুক্রানুর পরিমাণ বাড়ায়।

অশ্বগন্ধার খাওয়ার নিয়মঃ
রাতে ঘুমানোর পূর্বে ১ চা চামচ পাউডার ১ কাপ কুসুম গরম পানি /দুধ/ চা এর সাথে খাওয়া যাবে। সাথে মধু সহ খেলে আরো ভালো ফলাফল পাবেন।

ন্যাচারালস অশ্বগন্ধার বিশেষত্বঃ
ভার্জিন গ্রেডের অশ্বগন্ধাকে বাছাই ও প্রক্রিয়াজাত করে ন্যাচারলস অশ্বগন্ধা পাউডার তৈরি করা হয়। শতভাগ প্রাকৃতিক হওয়ায় ন্যাচারালস অশ্বগন্ধা বাজারের সাধারণ অশগন্ধা থেকে অধিক কার্যকর ও স্বাস্থ্যসম্মত। ন্যাচারালস এর কোন পণ্যেই ক্ষতিকর ও অপ্রয়োজনীয় উপদানের মিশ্রণ থাকে না।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ মেরাজুল ইসলাম
১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ

✍️ সম্মানিত, বাতায়ন প্রেমীশিক্ষক-শিক্ষিকা , অ্যাম্বাসেডর , সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা , প্রেডাগোজি রেটার আমার সালাম রইল। রেটিং সহ আমি আপনাদের সাথে আছি। আমার বাতায়ন বাড়িতে আপনাদের আমন্ত্রণ রইলো। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন , নিজে সুস্থ্ থাকবেন, প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখবেন।